Header Ads

সিন্ধু নদীর পাথুরে জ্যামিতি প্রাচীন ভৌগলিক ইতিহাস ব্যাখ্যা করে




অতনু দাস, দেরাদুন:

সিন্ধু নদীর ভৌগলিক তথ্যের সাহায্যে লাদাখ হিমালয়ের নদীতে বালি ও শিলাবিন্যাসের ওভারল্যাপিং থেকে জ্যামিতিক উপাদানের সাহায্যে দেরাদুনের ওয়াদিয়া ইন্সটিটিউট অব হিমালয়ান জিওলজির গবেষকরা সিন্ধূ নদী উপত্যকার প্রাচীন ভৌগলিক ইতিহাসের বিষয়ে জানতে সক্ষম হয়েছেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের অন্তর্গত স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাটির অনুসন্ধানকারীরা সে সময়কালে নদী প্রবাহের গভীর অধ্যয়ন করেছেন। নদীর পলি এবং ক্ষয়ের আকারে পলিজমির  উচ্চতা বৃদ্ধির জ্যামিতিক সূত্রের সাহায্যে অধ্যয়ন করা হয়।

নদীর স্রোত পাহাড়গুলিতে সর্বব্যাপী যা মানব সমাজের অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যত বজায় রাখতে সহায়তা করে। এ উপত্যকায় বিস্তৃত জমি বৃদ্ধির একটি অংশ যা নদী উপত্যকার পর্যায়ক্রমিক বৃদ্ধি এবং ক্ষয়ের প্রক্রিয়াগুলি বোঝার জন্য হিমালয় অঞ্চলের ব্যাপকভাবে অধ্যয়ন করা হয়েছে। 

বিজ্ঞানীরা এখনও বিতর্ক করছেন যে, অধিক বৃষ্টিপাত ও হিমবাহ গলনের সাথে আর্দ্র জলবায়ু নদীর তলদেশের বর্ধিত পলল, পলির ঘনত্ব উত্থিত করে, না খরার পরিস্থিতিতে এটি ঘটে ? না জলের অনুপাতে বর্ধিত পলির সৃষ্টি হয়?

সিন্ধু নদী, লাদাখ হিমালয়ের পলিজমি ক্ষয়ের সময়কালে গবেষকরা বর্তমান এবং ভূতাত্ত্বিক সময় স্কেলের মধ্যে তিনটি সাম্প্রতিকতম অবস্থান অধ্যয়ন করেছেন। হাজার বছর ধরে নদীর তলদেশ গননার জন্য প্রবাহে ওভারল্যাপিং পাথরের জ্যামিতিক তথ্য ব্যবহৃত হয়। 

নদীর উত্থানের সময় তারা নদীর তল গণনা করতে প্রবাহে ওভারল্যাপিং পাথরের ২৩ হাজার বছরের জ্যামিতিক তথ্য ব্যবহার করেছিলেন, আর নদী বাঁধের সময় ঘটে যাওয়া প্রাচীন পাথরগুলির ক্ষয় রোধে সংরক্ষণ ক্ষমতার বিচার করা হয়। 

গবেষকেরা পর্যবেক্ষণ করেছেন হিমালয় নদীগুলিতে তুষারপাতের তারতম্য ঘটেছে। হিমবাহ সংঘটিত জলবায়ু পরিস্থিতি এবং হিমবাহ ঘটনা নদীতে পলির পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে ।

জিওমফোর্মোলজি জার্নালে প্রকাশিত এ গবেষণা থেকে বোঝা যায় যে সিন্ধূ নদীর জলপ্রপাতটি সামুদ্রিক আইসোটোপ পর্যায় (এম আই এস) সামুদ্রিক অক্সিজেন-আইসোটোপ পর্যায়ে তখন পৃথিবীর প্যালিওক্লিমেট নিরন্তর পরিবর্তন ঘটেছিল।  প্যালিওক্লিমেট থেকে প্রাপ্ত অনুমান এবং অক্সিজেন আইসোটোপ ডেটা মেঘের গভীর সমুদ্রের নমুনাগুলি থেকে প্রাপ্ত তাপমাত্রায় পরিবর্তনের প্রতিফলনের কথা জানা যায় ।  

যে সময়ে হিমবাহ ক্ষয়ের শুরু হয়েছিল, তখন হিমবাহের জলের অনুপাতে হিমবাহ কম ছিল।

No comments

Powered by Blogger.