Header Ads

সাহিত্যিক নিমাই ভট্টাচার্য প্রয়াত



প্রয়াত হলেন সাহিত্যিক নিমাই ভট্টাচার্যবয়স হয়েছিল ৮৯ বছরবৃহস্পতিবার বেলা ১২টা ১০ মিনিটে টালিগঞ্জের বাড়িতে তাঁর মৃত্যু হয়তিনি বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছিলেনতাঁর তিন পুত্র দুই কন্যা বর্তমাননিমাইবাবুর স্ত্রী আরও দুই মেয়ে আগেই প্রয়াত হয়েছেন 
১৯৩১ সালে তৎকালীন অবিভক্ত বাংলার (অধুনা বাংলাদেশের) মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার শরশুনা গ্রামে জন্মালেও পরে পশ্চিমবঙ্গেই স্থায়ী ভাবে বসবাস করেছেন এই জনপ্রিয় লেখকদেশভাগের পর তিনি কলকাতায় চলে আসেনপ্রথম জীবনে সাংবাদিকের পেশা গ্রহণ করেন নিমাইবাবুকলকাতায় সাংবাদিকতা শুরু করলেও পরে দীর্ঘ ২৫ বছর দিল্লিতে সাংবাদিকতা করেন তিনি
এই পেশায় থাকার সুবাদে তিনি খুব কাছ থেকে দেখেছেন সেই সময়কার রাজনৈতিক মহল এবং একই সঙ্গে গ্ল্যামারের দুনিয়াকেসেই অভিজ্ঞতা ছায়া ফেলে তাঁর গল্পে-উপন্যাসেতাঁর প্রথম গ্রন্থ রাজধানীর নেপথ্যেপ্রকাশিত হয় ১৯৬৪ সালেপরে লেখালেখিকেই পুরো সময়ের পেশা হিসেবে নেনএকটা দীর্ঘ পর্বে বাঙালির পড়ার খিদেকে মিটিয়েছে নিমাই ভট্টাচার্যের রচনা
উপন্যাস, ছোট গল্পের বাইরে নিমাইবাবু লিখেছেন বিপ্লবী বিবেকানন্দ মতো বইওবাংলায় জনপ্রিয় লেখকবলতে যা বোঝায়, নিমাই ভট্টাচার্য ছিলেন আক্ষরিক অর্থেই তা-তাঁর লেখা উপন্যাসের সংখ্যা ১৫০-এরও বেশি
মেমসাহেব’, ‘এডিসি’, ‘রাজধানী এক্সপ্রেস’, ‘গোধূলিয়া’— একের পর এক উপন্যাস এক সময়ে বাঙালির অন্দরমহলকে মাতিয়ে রেখেছিল১৯৭২ সালে তাঁর উপন্যাস থেকেই নির্মিত হয় পিনাকী মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ছবি মেমসাহেবউত্তমকুমার, অপর্ণা সেন অভিনীত সেই ছবি আজও বাংলা সিনেমার রোম্যান্টিক পর্বের মাইলফলক (সংগৃহীত)


No comments

Powered by Blogger.