Header Ads

হাইকোর্টের নির্দেশে সন্তোষ হোজাই হত্যাকাণ্ডের তদন্তে এসআইটি গঠন করল রাজ্য পুলিশ

   বিপ্লব দেব, হাফলং ৫ মেঃ গৌহাটি হাইকোর্টের নির্দেশে সন্তোষ হোজাই হত্যাকান্ডের তদন্তের জন্য অসম পুলিশ এসআইটি গঠন করল। মৃত সন্তোষ হোজাইর স্ত্রী জয়ন্তা হোজাইর একটি রিট আবেদনের ভিত্তিতে গৌহাটি হাইকোর্টের মুখ্য ন্যায় দণ্ডাধীশ অজয় লাম্বা ও সৌমিত্র শইকীয়ার ডিভিশন ব্যাঞ্চ শুনানি গ্রহণ করে অসম পুলিশকে সন্তোষ হোজাই হত্যাকান্ডের তদন্ত করতে এসআইটি গঠন করার নির্দেশ দেওয়ার পর রাজ্যের পুলিশ প্রধান ভাষ্কর জ্যোতি মহন্ত দক্ষিণ অসম প্রান্তের ডিআইজি দিলীপ কুমার দে-নেতৃত্বে এসআইটি গঠন করেন। এই বিশেষ তদন্তকারী দলে সদস্য হিসেবে রয়েছেন ডিমা হাসাও জেলার পুলিশ সুপার বীর বিক্রম গগৈ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মানবেন্দ্র গগৈ এবং কাছাড় পুলিশের ডিএসপি সঞ্জীব ভার্গব গোস্বামী।

 ডিমা হাসাও জেলার হারাঙ্গাজাও থানার অন্তর্গত গামাডি হাওর গ্রামের বাড়ি থেকে ভেঙ্গে দেওয়া ডিএইচডি-র প্রাক্তন নেতা তথা ঠিকাদার সন্তোষ হোজাইকে লকডাউনের মধ্যে গত ২৪ এপ্রিল পাঁচজনের দূষ্কৃতিকারীর দল বন্দুকের নলের মুখে অপহরন করে নিয়ে গিয়ে পরবর্তীতে নৃশংস ভাবে খুন করা হয়। তারপর গত ৩০ এপ্রিল সন্তোষ হোজাইর মৃতদেহ হারাঙ্গাজাও থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরবর্তী লাংটিং থানার অন্তর্গত মুপা রিজার্ভ ফরেষ্টের কাছে ২৭ নম্বর জাতীয় সড়কের কাছে লাইলিংয়ের জঙ্গলে মাটির নীচে পুতে রাখা অবস্থায় উদ্ধার করে লাংটিং পুলিশ। তারপরই মৃত সন্তোষ হোজাইর স্ত্রী জয়ন্তা হোজাই গৌহাটি হাইকোর্টের দারস্থ হন। এবং এই হত্যাকান্ডের পিছনে ডিএসপি সূর্যকান্ত মরানের হাত রয়েছে বলে একটি হলপনামা দাখিল করেন এর পরিপ্রেক্ষিতে গৌহাটি হাইকোর্টের মুখ্য বিচারপতি অজয় লাম্বা ও সৌমিত্র শইকীয়ার ডিভিশন ব্যাঞ্চ শুনানি গ্রহন করে অসম পুলিশকে এসআইটি গঠন করে গৌহাটি হাইকোর্টের নজরদারিতে তদন্ত করার নির্দেশ দেয় রাজ্য পুলিশকে। এবং এই তদন্ত প্রক্রিয়ায় ফরেনসিক ল্যাবের বিশেষজ্ঞ সহ যেখান থেকে সন্তোষ হোজাইর মৃতদেহ উদ্ধার হয় সেখানে গিয়ে সরজমিনে তদন্ত করে ৮ মে-র মধ্যে এনিয়ে হলফনামা গুয়াহাটি হাইকোর্টে দাখিল করার নির্দেশ দেওয়ার পাশাপাশি কভিড ১৯ অতিমারির জন্য তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করতে দেরী করা চলবে না অবিলম্বে তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করে হলপনাম দাখিল করার জন্য রাজ্য পুলিশকে নির্দেশ দেয় মুখ্য বিচারপতি অজয় লাম্বা ও সৌমিত্র শইকীয়ার ডিভিশন ব্যাঞ্চ। এদিকে মঙ্গলবার সন্তোষ হোজাইর নৃশংস খুনের প্রতিবাদে হাফলং জেলাশাসক কার্যালয়ের সামনে ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়ন অল ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়ন ডিমাসা সর্বোচ্চ সংগঠন জাদিখে নাইশ হসমের সদস্যরা প্রতিবাদী কার্যসূচি পালন করে এই হত্যাকান্ডের সুবিচার চেয়ে এবং সমগ্র ঘটনার এনআইএ (নিয়া)-র তদন্তের দাবি জানিয়ে ডিমা হাসাও জেলার জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়ার মাধ্যমে কেন্দ্রীয় গৃহমন্ত্রী অমিত শাহের উদ্দেশ্যে প্রেরন করে। এদিকে অপহরন ও হত্যাকান্ডের ঘটনার পিছনে পুলিশের ভূমিকা রয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করে ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক প্রমিত সেঙ্গইয়ং অল ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক উত্তম লাংথাসা ও জাদিখে নাইশ হসমের সভাপতি রঞ্জু হাকমকসা বলেন এই নৃশংস ঘটনার পর যাদের হাতে আইন রক্ষার দায়িত্ব তাদের উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন জেলার সাধারন মানুষ। তাই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইন অনুযায়ী সাজা প্রদানের দাবি জানায়।

No comments

Powered by Blogger.