Header Ads

লকডাউনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাই ভারতীয় রেলওয়ের মূলমন্ত্র : অমরেশ রায়



নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, শিলচর : কোভিড-১৯ মোকাবিলায়, লকডাউন চলাকালীন জনসাধারণের সরকারি নির্দেশ মেনে চলা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে পারলেই এই কোভিড-১৯ মহামারীকে প্রতিহত করা সম্ভব হবে, বলেন অমরেশ রায়নয়া ঠাহররের বরাক ব্যুরো চিফ শুভসুন্দর দেব চৌধুরীকে এক ইন্টারভিউতে এমনটাই বললেন ভারতীয় রেলওয়ে পেসেঞ্জার এমিনিটিস কমিটির সদস্য অমরেশ রায়এছাড়াও, কোভিড-১৯ মোকাবিলায় ভারতীয় রেল যাত্রীদের স্বার্থের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে ব্যুরো চিফের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে তিনি আরোও বলেন, লকডাউনের সংকটময় এই পরিস্থিতিতে তিনি যাত্রীদের সুরক্ষা সুবিধা- অসুবিধার ব্যাপারে রেল বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিরন্তর যোগাযোগ রেখে কাজ করে যাচ্ছেনতিনি বলেন সম্প্রতি, কোভিড-১৯ নিয়ে রেলমন্ত্রক অনেক কার্যসূচি হাতে নিয়েছে এবং এই প্রাণঘাতী ভাইরাসকে প্রতিহত করতে স্যোসাল ডিস্টেন্সিং-এর মাধ্যমে যাত্রীদের উদ্দ্যেশ্যে স্বাস্থ্যবিভাগের সব নির্দেশাবলী মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন রেল কর্তৃপক্ষএছাড়া, বর্তমানে সমগ্ৰ ভারতবর্ষের মাইগ্ৰেন্ট লেবার্সদের স্বদেশে ফিরিয়ে আনতে এবং যারা ব্যক্তিগত কোন কাজে বা চিকিৎসার জন্য রাজ্যের বাইরে আছেন, তাদেরকে নিজ নিজ রাজ্যে ফিরিয়ে আনতে ভারতবর্ষের বিভিন্ন জায়গায় গত ১২ মে থেকে ৩০টি স্পেশাল ট্রেন চলাচলের ব্যবস্থা করেছে রেলমন্ত্রকতবে, এই ট্রেনেগুলোতে যাতায়াত করতে স্যোসাল ডিস্টেন্সিং মানার উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে রেলমন্ত্রকের তরফ থেকে বলেও জানান অমরেশ বাবুতাছাড়া, যাত্রীদের সুবিধার্থে ট্রেনগুলোতে খাওয়া-দাওয়ার সুব্যবস্থা, পানীয় জলের ব্যবস্থা সহ আছে ডাক্তারের ব্যবস্থাওউল্লেখ্য, এই ৩০টি ট্রেনের মধ্যে আগরতলা-দিল্লী, দিল্লী-আগরতলা এবং দিল্লী-ডিব্রুগড় এবং ডিব্রুগড়-দিল্লী রাজধানী এক্সপ্রেসটি চলবেতবে, স্টপেজ দেওয়ার ব্যাপারে একটু পরিবর্তন করা হয়েছেযেমন, আগরতলা থেকে যে ট্রেন নিউ দিল্লী যাবে সেটা বদরপু্র থেকে রওয়ানা পর মধ্যে কোথাও না থেমে গুয়াহাটি গিয়ে থামবেএরপর, গুয়াহাটি থেকে জলপাইগুড়ি, কাটিহার, বারাউনি পাটলিপুত্র, পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায় (পূর্বের মুঘলসরাই) জংশনে স্টপেজ দিয়ে তারপর সোজা নিউ দিল্লী গিয়ে থামবে তদরূপ, দিল্লী থেকে ফিরে আসার সময় একইভাবে প্রথমে পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায় (মুঘলসরাই) জংশনে স্টপেজ দিয়ে, তারপর একে একে পাটলিপুত্র, বারাউনি, কাটিহার, জলপাইগুড়ি, গুয়াহাটি তারপর বদরপুরে স্টপেজ দিয়ে সোজা আগরতলা গিয়ে থামবেতবে, যেসব যাত্রীরা বদরপুরে নামবেন তাদেরকে কিন্তু সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনে বা হোম কোয়ারেন্টাইনে যেতে হবে এবং যারা আগরতলাতে নামবেন তাদেরকেও সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনে বা হোম কোয়ারেন্টাইনে যেতে হবেসর্বাবস্থায় সফরকালে সকল যাত্রীকে সরকারের দেওয়া নির্দেশ নিয়মনীতিগুলো মেনে চলার এবং যাতায়াত কালে যাত্রীরা যেন কোনরকম দ্বিমত পোষণ না করেন সে বিষয়েও বলেন অমরেশ বাবুসেই সঙ্গে, ভারতীয় রেলমন্ত্রক এই ৩০টি স্পেশাল ট্রেন চালিয়ে যদি সফলতা অর্জন করে তবে, আগামীতে ধাপে ধাপে আরও ট্রেন চালানো হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন অমরেশবাবুপাশাপাশি তিনি এটাও জানান, এই ট্রেনে সফর করতে হলে অনলাইনে টিকিট কাটতে হবে এবং কোন তৎকাল টিকিট কাটার ব্যবস্থা থাকবে না বা কোন রেলওয়ে স্টেশনের কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করারও কোন ব্যবস্থা থাকবে নাতাছাড়া, অনলাইনে টিকিট কাটার সময় যতজন যাত্রী থাকবেন ঠিক ততোটাই টিকিট দেওয়া হবেসকলের সুবিধার্থে রেলওয়ের আইআরসিটিসির আওতার ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজ নিজ গন্তব্য অনুযায়ী অনলাইনে টিকিট কাটতে অনুরোধ জানান তিনিতৎসঙ্গে, সবাইকে সরকারি নির্দেশ মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই করোনা ভাইরাসকে পৃথিবী থেকে নির্মূল করার জন্য সার্বিক সহযোগিতার আহ্বান জানান

No comments

Powered by Blogger.