Header Ads

অসমের হাফলংয়ে ঝটিকা সফরে রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী অতুল বরা, খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের মন্ত্রী ফনীভূষণ চৌধুরী

 বিপ্লব দেব, হাফলং ১১ মেঃ রাজ্যের কৃষি ও পশুচিকিৎসা ও পশুপালন বিভাগের মন্ত্রী অতুল বরা ও খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের মন্ত্রী ফনীভূষণ চৌধুরী সোমবার এক ঝটিকা সফরে হাফলং এসে উপস্থিত হন। সোমবার সকাল ৮ নাগাদ গোলাঘাট থেকে সড়ক পথে লাংমডিং হয়ে দুপুর ২ টা নাগাদ হাফলং আবর্ত ভবনে উপস্থিত কভিড ১৯ নিয়ে উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত পরিষদের সিইএম দেবোলাল গার্লোসা চেয়ারপার্সন রানু লাংথাসা জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া পুলিশসুপার বীরবিক্রম গগৈ কৃষি বিভাগ পশুচিকিৎসা ও পশুপালন বিভাগ সহ খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়ে কভিড ১৯ নিয়ে আলোচনা করেন। 
 
বৈঠক শেষে মন্ত্রী অতুল বরা সাংবাদিকদের বলেন লকডাউনের সময়ে যাতে রাজ্যের প্রতিটি জেলায় জনগন অসুবিধার সন্মুখীন না হয় সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য জেলাপ্রশাসন ও খাদ্য ও অসামরিক বিভাগকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ডিমা হাসাও জেলায় যাতে লকডাউনে সাধারন মানুষ সমস্যায় না পরে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়ে মন্ত্রী অতুল বরা বলেন তাছাড়া এই লকডাউনের সময় যাতে খাদ্যের অভাব না হয় সেদিকে খেয়াল রেখে খাদ্য শষ্য যথেষ্ট পরিমানে মজুত রাখার জন্য জেলাপ্রশাসন ও খাদ্য ও অসামরিক বিভাগকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানান মন্ত্রী। এছাড়া আফ্রিকান সোয়াইন ফ্লু নিয়ে বলতে গিয়ে অতুল বরা বলেন রাজ্যের ছয়টি জেলায় শুকরের মধ্যে প্রথমে এই আফ্রিকান সোয়াইন ফ্লু ছড়িয়ে পরার পর এবার এই রোগ মোট ১০ টি জেলায় শুকরের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে এবং সঙ্গে শুকরের মৃত্যুর হার বেড়েছে এখন পর্যন্ত এই আফ্রিকান সোয়াইন ফ্লুতে ১৩ হাজারের বেশী শুকরের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন আফ্রিকান সোয়াইন ফ্লু সংক্রামন প্রতিরোধ করার জন্য বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকের দল প্রত্যেক জেলাতে পাঠানো হয়েছে। তবে মন্ত্রী বলেন এখন ও ডিমা হাসাও জেলায় এখন ও শুকরের মধ্যে এই রোগ দেখা দেয়নি। কিন্তু বাইরে থেকে শুকর ও শুকরের মাংস ডিমা হাসাও জেলায় বাইরে থেকে আমদানি ও রপ্তানি করার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে মন্ত্রী অতুল বরা সাংবাদিকদের জানান। এদিন সন্ধ্যায় মন্ত্রী অতুল বরা সড়ক পথে ডিফু উদ্দেশ্যে ফিরে যান। 

No comments

Powered by Blogger.