Header Ads

উহানের ভাইরাস ব্যাঙ্ক -এ 'আসল রহস্য' লুকিয়ে, করোনা নিয়ে মার্কিন তদন্ত জোরকদমে শুরু !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় 
 
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নজর বহুদিন ধরেই রয়েছে উহানের ভাইরোলজি প্রতিষ্ঠানে। 'দ্য সান' এর রিপোর্ট বলছে , বহুদিন ধরেই মার্কিন গোয়েন্দারা বেজিংকে এই ভাইরাসের গবেষণা নিয়ে সতর্ক করেছে। তবে তার তোয়াক্কাও করেনি চিন। এবার এই ভাইরলজি ইনস্টিটিউটের ভিতর ভাইরাস ব্যাঙ্ক নিয়ে উঠে এলো একাধিক তথ্য। 
 
'চায়না ডেইলি' এর একটি টুইট সারা বিশ্বে তোলপাড় ফেলে দিয়েছে। সেখানে একটি ছবিতে দেখানো হয়েছে, চিনের উহানের ভাইরাস ব্যাঙ্কে কীভাবে ভাইরাস রাখা হয়। জানান দেওয়া হয়েছে, ব্যাঙ্কের ফ্রিজারে ১৫০০ টি স্ট্রেইন রয়েছে ভাইরাসের। যা আপাত দৃষ্টিতে প্রবল ভয়ঙ্কর বিষয় !
এদিকে বিভিন্ন বিদেশী পত্র পত্রিকায় দাবি করা হয়েছে, যে চিনের ওই ভাইরাস ব্যাঙ্কের ফ্রিজারের 'সিল' সেভাবে পোক্ত নয়। আর সেখান থেকে যে এই ভাইরাস ছড়ায়নি , তার কোনও নিশ্চিত যুক্তি এখনও মেলেনি। এমন দাবি করেছে 'দ্য সান'।
৩০০ মিলিয়ন ইউয়ান ( ৪২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) অর্থ ব্যয় করে চিন বানিয়েছে এই ভাইরাস ইনস্টিটিউট। ২০১২ সাল থেকে এখানে পি থ্রি ল্যাবটরেটারি কার্যকরী হয়েছে। আর সেখানে বাদুড়ের দেহে করোনা গবেষণা চালাতে গিয়ে এমন মারণ ভাইরাস চিন ছড়িয়েছে বলে দাবি করছে ইওরোপ, আমেরিকা।
মার্কিন সচিব মাইক পম্পেও সাফ জানিয়েছেন যে চিনের ওই ভাইরাস ব্যাঙ্কে কী রয়েছে , আর কী ঘটেছে তা নিয়ে ইতিমধ্যেই তদন্তে নেমে পড়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বের তাবড় বিজ্ঞানীদের কেন ওই ল্যাবরেটারিতে যেতে দেওয়া হয়নি, তা নিয়ে রয়েছে মার্কিন মুলুকের প্রবল প্রশ্ন। যার উত্তরের অপেক্ষায় গোটা বিশ্ব।
মার্কিন দাবি দাওয়া সত্ত্বেও বিজ্ঞানীমহল বলছে , করোনা ভাইরাস যে কোনও ল্যাবরেটারি থেকে জন্মেছে সেই সংক্রান্ত কোনও খবর এখনও নেই। এমন কোনও তথ্য প্রামণও এখনও মেলেনি। তবে আগামীর পরীক্ষা নীরিক্ষার দিকে তাকিয়ে রয়েছে গোটা বিশ্ব।

No comments

Powered by Blogger.