Header Ads

চিনে করোনা নিয়ে যাঁরাই সন্দেহ প্রকাশ করেন তাঁরাই উধাও ! উহান ল্যাব নিয়ে একাধিক চাঞ্চল্যকর তথ্য !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়
 
গোটা বিশ্বের একাধিক দেশ আপাতত ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছে চিনের বিরুদ্ধে। জার্মানির মতো ইওরোপের দেশগুলিও আমেরিকার মতো করেই চিনের বিরুদ্ধে করোনার প্রাদুর্ভাব ছড়ানোর অভিযোগেই সরব। এমন পরিস্থিতিতে একাধিক রিপোর্ট উঠে আসছে এশিয়ার সবচেয়ে বড় ভাইরাস ব্যাঙ্ক উহানের ল্যাবরেটারি থেকে। চিনের একাধিক চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে উঠছে একাধিক খবর।
'দ্যা সান' এর একটি সদ্য প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে, চিনে যাঁরাই সরকারের বিরুদ্ধে করোনা নিয়ে সরব হয়েছিলেন, তাঁদেরই আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সমাজসেবী সংগঠনের একাধিক সদস্য, বিজ্ঞানীদের একটি অংশ চিন সরকারের সামনে করোনার প্রাদুর্ভাব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। আর যাঁরাই 'হুইসেল ব্লোয়ার' হিসাবে চিহ্নিত হয়েছেন ,এবার তাঁরাই উধাও ! যা রীতিমতো সন্দেহের আবহ তৈরি করেছে। 
 
শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয়, ব্রিটেনও উহানের ভাইরোলজি ল্যাবরেটারি নিয়ে সন্দিগ্ধ। একাধিক সন্দেহজনক বার্তা উহানের অন্যতম ভাইরাস ব্যাঙ্ক থেকে উঠে এসেছে। আর এই বিষয়েই ব্রিটেনের গোয়েন্দারা সন্দেহ প্রকাশ করছেন।
ব্রিটেনের একদল গোয়েন্দাদের মতে , উহানের ভাইরোলজি ল্যাবে বাদুড়ের উপর করোনা ভাইরাসের টেস্ট করছিলেন বিজ্ঞানীরা। আর সেটিই 'লিক' করে বাইরে চলে আসে। যা আজ বিশ্বে অতিমারীর রূপ নিয়েছে। করোনা ভাইরাসের দংশনে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ২ লাখ মানুষের।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট থেকে সচিব সকলেই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন উহানের ল্যাবরেটারি নিয়ে। যে জায়গা থেকে উহানের মাংসের বাজার বেশি দূরে নয়। আর সেই মাংসের বাজারেই প্রথম করোনা আক্রান্তকে পাওয়া যায়। তবে, মার্কিন গোয়েন্দাদের মতে, এই প্রথম করোনা আক্রান্ত বাজারের বিক্রেতা ছিলেন না, তিনি উহানের ভাইরোলজি প্রতিষ্ঠানের ইনটার্ন ছিলেন। আর তাঁর থেকেই এই রোগ ছড়িয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.