Header Ads

ভিন রাজ্য থেকে ডিমা হাসাও জেলায় ফিরে আসা ২৪০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে

 বিপ্লব দেব, হাফলং ২৬ মার্চঃ ডিমা হাসাও জেলায় বর্হি রাজ্য থেকে আসা ২৪০ জনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর এদের হোম কোয়ারেন্টিনয়ে রাখা হয়েছে। ডিমা হাসাও জেলার জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া বলেন ভিন রাজ্য থেকে ডিমা হাসাও জেলায় ফিরে এসে যারা জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে রিপোর্ট করে নি এদের শনাক্ত করে ৫০ টি সার্ভিলেন্স টিম এদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে কোয়ারেন্টিনে রাখার জন্য কাজ করে চলছে। জেলাশাসক জানান ইতিমধ্যে ডিমা হাসাও ২ হাজার ১৮৬ জনের স্ক্রিনিং করা হয়েছে। এছাড়া হাফলঙে নব নির্মিত শিক্ষা ভবনটিকে ৪০ বিছানা যুক্ত কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে। অমিতাভ রাজখোয়া জানান লক ডাউন চলাকালীন জরুরি কোনও কাজ ছাড়া কেউ যাতে ঘর থেকে বেড়িয়ে না আসেন। সরকারি নিয়ম নীতি না মেনে এভাবে ঘর থেকে বেড়িয়ে আসলে ২ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

  জেলাশাসক লক ডাউন চলাকালীন বিনা কাজে সাধারন নাগরিকদের ঘর থেকে বেরিয়ে রাস্তায় না আসার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে লক ডাউনের সময় ডিমা হাসাও জেলায় অত্যাবশকীয় সামগ্রীর দোকান সকাল ৮ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশ জারি করে জেলা প্রশাসন। এদিকে করোনা ভাইরাস কভিড ১৯ রোগ সমগ্র বিশ্ব জুরে মহামারীর আকার ধারন করেছে। ভারতে ও প্রতিদিন কভিড ১৯ রোগে আক্রান্ত দ্রুত হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ইতি মধ্যে ভারতে ১২ জনের প্রান কেড়ে নিয়েছে কভিড ১৯ রোগে। আর এতেই এক সমগ্র দেশেই এক আতঙ্কময় পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে এর থেকে বাদ যায়নি ডিমা হাসাও জেলা ও হারাঙ্গাজাও থানার অন্তর্গত তিনটি গ্রাম লক ডাউন করে দেওয়া হয়েছে। বাইরের মানুষের এই তিনটি গ্রামে প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে গ্রামবাসীরা। এর মধ্যে রয়েছে মুনথাংজাও,বৌলমৌল ও হুংভেং গ্রামের রাস্তা লক ডাউন লেখে বন্ধ করে দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। এদিকে বৃহষ্পতিবার হাফলঙে পুলিশ কিছুটা কঠোর হয়েছে বিনা কাজে ঘর থেকে বেরিয়ে আসা অনেক ব্যক্তিকে ঘরে পাঠিয়ে দেয়। তবে শহরে মানুষ বেরিয়ে না আসলে ও হাফলঙের হাগজার নগরে লক ডাউন অমান্য করে অনেকেই বাইরে বেরিয়ে এসে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে আড্ডা দিতে দেখা যায়। এনিয়ে পুলিশ ও জেলাপ্রশাসনকে আরো কঠোর হতে হবে বলে অনেক সচেতন নাগরিক মত ব্যক্ত করেন।

No comments

Powered by Blogger.