Header Ads

সারা দেশে কোভিড ১৯ ভাইরাসে আক্ৰান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭, বন্ধ করা হয়েছে বাস, ট্ৰেন, মেট্ৰো পরিষেবা

নয়া ঠাহর ওয়েব ডেস্ক, ২২ মাৰ্চঃ 
 সারা দেশে করোনা ভাইরাসে আক্ৰান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭। রবিবার গুজরাতের সুরাটে হাসপাতালে এদিন ৬৯ বছর বয়সের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। আক্ৰান্তের সংখ্যা ৩৪১ জন।

রবিবার নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্ৰমণ ঠেকাতে প্ৰধানমন্ত্ৰীর ডাকা ‘জনতা কাৰ্ফু’তে সাড়া দিয়েছে গোটা দেশবাসী। কিন্তু একদিনে এই সমস্যা মেটার নয় এই লকডাউন দীৰ্ঘমেয়াদী হলে তবেই ভাইরাসের শৃঙ্খল ভাঙা সম্ভব বলে মনে করছেন অনেকেই।

প্ৰসঙ্গত, কোভিড-১৯ আতঙ্কের মধ্যেই রবিবার হাজার হাজার যাত্ৰী নিয়ে হাওড়া, দিল্লি, কেরল থেকে ট্ৰেন উত্তরপূৰ্বাঞ্চলের লোকজন গুয়াহাটি রেল স্টেশন পৌঁছেছে। তবে ভিন্ন রাজ্য থেকে বাসে ট্ৰেনে আসা যাত্ৰীদের বিশেষ স্ক্ৰিনিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। করোনা আতঙ্কের মধ্যে দেশের করোনা সংক্ৰমিত ভিন্ন রাজ্য থেকে যাত্ৰীদের আসার ঘটনাটি অসমবাসীর উদ্বেগ বাড়িয়েছে। অসমের পাৰ্শ্ববৰ্তী রাজ্য মেঘালয়ের যাত্ৰীও রয়েছে। মেঘালয় থেকে আসা যাত্ৰীদের সাময়িকভাবে মেঘালয় হাউসে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

রাজধানী দিল্লিতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আন্তৰ্জাতিক বিমানের ওঠানাম তো বন্ধ ছিলই। এবার অন্তৰ্দেশীয় বিমানের ওঠানামাও বন্ধ করা হয়েছে।   
ছবি, সৌঃ ইন্টারনেট
উল্লেখ্য, এদিন সকালে কেন্দ্ৰের ক্যাবিনেট সচিব প্ৰধানমন্ত্ৰীর সচিবালয়ের প্ৰিন্সিপাল সেক্ৰেটারি সব রাজ্যের মুখ্য সচিবের সঙ্গে বৈঠক করেন। এই বৈঠকেই স্থির হয়, দেশের যে ৭৫ টি জেলা থেকে কোভিড-১৯ আক্ৰান্তের খবর এসেছে সেখানে যত শীঘ্ৰ সম্ভব শুধু জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব বন্ধ করে দেওয়া হোক। ফলত বোঝাই যাচ্ছে গোটা দেশ আংশিক লকডাউনের পথেই।

ভাইরাসের সংক্ৰমণ ঠেকাতে ২২ মাৰ্চ মধ্যরাত থেকে সারা দেশে পুরোপুরি বন্ধ হচ্ছে রেল পরিষেবা। কেন্দ্ৰীয় রেল মন্ত্ৰক থেকে একথা জানানো হয়েছে। সব দূরপাল্লার মেল, প্যাসেঞ্জার ট্ৰেন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে বোৰ্ড। বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে মেট্ৰো পরিষেবাও। সোমবার থেকে ৩১ মাৰ্চ পৰ্যন্ত চলবে না মেট্ৰো রেলও। শুধুমাত্ৰ অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিবহণের জন্য চালু থাকবে মালগাড়ি। করোনা ঠাকাতে ২২ মাৰ্চ থেকে সারা দেশে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যাত্ৰীবাহী বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।



No comments

Powered by Blogger.