Header Ads

রাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশের পর ও নিউহাফলং রেলস্টেশনে ডিমা হাসাও জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ চিকিৎসকের দল নিয়োগ করেনি

বিপ্লব দেব, হাফলং ১৮ মার্চঃ  

সমগ্র বিশ্ব যখন করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে। প্রতিদিনই ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এর থেকে বাদ যায়নি ডিমা হাসাও জেলা। করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত পাহাড়ের মানুষ। এদিকে অসমে এখনও করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের কোনও খবর না থাকলে ও সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা হিসেবে রাজ্যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শোপিং মল সিনেমা হল সব ২৯ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার কথা ঘোষনা করার পাশাপাশি সভা সমিতি ও লোক সমাগমের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। আর এই করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা দেখে ইতিমধ্যে রাজ্য সরকার রাজ্যের সব রেল স্টেশন গুলিতে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে যেন চিকিৎসকের দল নিয়োগ করার নির্দেশ জারি করার পর ডিমা হাসাও জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের মধ্যে এনিয়ে কোনও হেলদোল নেই ডিমা হাসাও জেলার নিউহাফলং সহ কোনও স্টেশনেই স্বাস্থ্য বিভাগ কোনও চিকিৎসকের দল নিয়োগ করেনি। 

দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিদিনই বহু রেলযাত্রী আসছেন এই পাহাড়ি জেলাতে কিন্তু ট্রেন থেকে নামার পর এসব যাত্রীর স্কিনিং করার জন্য কোনও চিকিৎসকের দল নিয়োগ করা হয়নি। বুধবার শিয়ালদাহ থেকে আগরতলা অভিমুখে যাওয়া কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে মালদা থেকে আগরতলা যাওয়ার দুই যাত্রী প্রচন্ড জ্বরে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেলের পক্ষ থেকে কন্ট্রোলের মাধ্যমে এই দুই রোগীকে চিকিৎসা করানোর জন্য বা এদের স্কিনিং করানোর কথা জানানো হলে ও চিকিৎসক না থাকায় নিউহাফলং স্টেশনে এদের কোনও ধরনের পরীক্ষা করা ছাড়াই বদরপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা প্রত্যেক জেলায় স্বাস্থ্য বিভাগকে রেল স্টেশন ও বাস ডিপোতে চিকিৎসকের দল ও স্বাস্থ্য কর্মী নিয়োগ করার নির্দেশ দেওয়ার পর ডিমা হাসাও জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ এনিয়ে কোনও ব্যবস্থা গ্রহন করেনি বলে অভিযোগ। এদিকে করোনা ভাইরাস কভিড১৯ আতঙ্কে ডিমা হাসাও জেলায় সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন জায়গায় বসা সাপ্তাহিক হাট বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করার পর এখন বাজার হাটে লোক সমাগম অনেকটা কমে গেছে। এদিকে বুধবার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে হাফলং শহরে ও বাজারে জনগনের সজাগতা আনতে ইন্ডিয়ান রেডক্রস সোসাইটি এক সজাগতা অভিযান চালায়। আগামী কয়েকদিন এভাবে রেডক্রসের সদস্যরা করোনা ভাইরাস নিয়ে শহর থেকে শুরু করে গ্রামঞ্চলে এই সজাগতা অভিযান চালাবে বলে জানিয়েছেন রেডক্রস সোসাইটির সাধারন সম্পাদক নির্মল সিং।

No comments

Powered by Blogger.