Header Ads

“আমি স্টার, আমাকে স্পেশাল ট্রিটমেন্ট দাও”: ডাক্তারদের সাথে অসভ্যতায় কনিকা কাপুর !!


বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় 

বলিউডে নিজেদের সবজান্তা মহাপন্ডিত মনে করা লোকের অভাব নেই। বলিউডের বেশিরভাগ লোকজন অল্পশিক্ষিত এবং মহামূর্খ এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। শুধুমাত্র নিজেরদের গ্ল্যামারের কারণে এরা সিনেমা জগতে সুযোগ পেয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে এমনিতেই ভালো সিনেমার থেকে বাজে ছবির বাজার বেশি, তাই প্রতিভার থেকে রূপের কদর বেশি। বলিউডের এই মূর্খরা নিজেদের বিরাট কিছু দেখানোর জন্য শুধুমাত্র হাস্যকর ইংরাজি বলতে শিখে নিয়ে, সমাজে নিজেদের VVVIP, তারকা, স্টার, সুপার স্টার ইত্যাদি হিসেবে আত্মপ্রচার করে। এখন করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যেও বলিউডের মূর্খদের প্রকৃত ছবি সামনে আসতে শুরু করেছে।
বলিউডেে আইটেম নাচ-গানের জন্য কুখ্যাত কনিকা কাপুরের করোনা ভাইরাস পজেটিভ ধরা পড়েছে। এয়ারপোর্টে চেকিং চলাকালীন এই অভিনেত্রী কর্মীদের সহায়তা করেন নি, উল্টে চেকআপ এড়িয়ে যেতে বাথরুমে লুকিয়ে ছিলেন। শুধু এই নয়, বিদেশ থেকে ফিরে উনি দেশজুড়ে নানা জায়গায় পার্টি করে বেড়িয়েছেন। যার কারণে তার থেকে ৫ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে।
কনিকা কাপুরকে লখনৌতে এক হাসপাতালে আইসলেশন করে রাখা হয়েছে। কিন্তু তিনি হাসপাতালের মধ্যেও উৎপাত শুরু করেছেন। কনিকা কাপুর হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সের প্রতি খারাপ ব্যাবহার করছেন বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। একদিকে যখন পুরো ভারত ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছে, তখন বলিউডের এই গায়িকা ডাক্তারদের সাথে অসভ্যতা করছেন।
ডাক্তাররা জানিয়েছেন কনিকা কাপুরের রুমে টিভি দেওয়া হয়েছে, বাথরুম দেওয়া হয়েছে, ভালো খাওয়া দাওয়া দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও উনি নিজেকে স্টার দাবি করে অসভ্যতা করছেন। কনিকা কাপুর বলেছেন, ” আমি একজন স্টার আমি রোগীর মতো থাকতে পারবো না, আমার VVIP-এর সুবিধা চাই।”
ডাক্তাররা বলেছেন, একজন রোগীর আচরণ নম্র হওয়া উচিত কিন্তু উনি হাসপাতালের মধ্যে চিৎকার করছেন তথা সকলকে অপমান করার চেষ্টা করছেন। করোনা ভাইরাস ছড়ানোর জন্য যোগী প্রশাসন কনিকা কাপুরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। সুস্থ হয়ে ফিরলেই কনিকা কাপুরের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে প্রশাসন জানিয়েছে।


No comments

Powered by Blogger.