Header Ads

পৃথক জেলা গঠনের দাবিতে ইন্ডিজেনাস পিপলস ফোরামের বনধে হিংসা হাফলঙে, পুলিশের কাঁদানো গ্যাস নিক্ষেপ আহত ৭

বিপ্লব দেব, হাফলংঃ ১১ ফেব্রুয়ারিঃ
এন সি হিলস ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরামের আহুত অনিদৃষ্টকালের ডিমা হাসাও জেলা বনধে শৈল শহর হাফলঙে মঙ্গলবার ব্যাপক হিংসা ছড়িয়ে পড়ে। শহরের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ও বনধ সমর্থককারীদের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। বাধ্য হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশকে মৃদু লাঠি চার্জ সহ কাঁদানো গ্যাস সহ রাবার বুলেট চালাতে হয়েছে। 

পুলিশ ও বনধ সমর্থককারীদের সংঘর্ষে কম করে সাত জন বনধ সমর্থককারী আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে কয়েকজন মহিলা ও রয়েছে। এদের সবাইকে হাফলং সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ডিমা হাসাও জেলাকে দ্বি-খন্ডিত করে দুটি পৃথক জেলা গঠন সহ পৃথক স্বশাসিত পরিষদ গঠনের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ৫ টা থেকে অনিদৃষ্টকালের জন্য ডিমা হাসাও জেলা বনধের ডাক দিয়েছিল এন সি হিলস পিপলস ফোরাম।

 বনধকে কেন্দ্র করে এমনিতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল ডিমা হাসাও জেলার পরিস্থিতি। ডিমাসা জনগোষ্ঠীর সাতটি সংগঠন বনধের বিরোধিতা করে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য বনধ প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছিল ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরামকে এছাড়া ডিমা হাসাও জেলার বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর বৃহৎ সংগঠনকে নিয়ে গঠিত জয়েন্ট কর্ডিনেশন কমিটি ও ডিমা হাসাও জেলার জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া ও পুলিশসুপার বীরবিক্রম গগৈ বনধ প্রত্যাহার করার আহ্বান জানানোর পর ও এতে কর্ণপাত করেনি ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরাম। বরং তারা তাদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে। 

মঙ্গলবার ৫ টা থেকে প্রথম কয়েক ঘন্টা বনধ শান্তিপূর্ণ থাকার পর সকাল ১০ টা নাগাদ অশান্ত হয়ে উঠে। প্রথমে হাফলং সিনড পয়েন্টের কাছে পিকেটারসদের পুলিশ আসতে বাধা দিলে শুরু হয় পুলিশ ও পিকেটারসদের মধ্যে সংঘর্ষ অবশেষে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশকে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট এবং কাঁদানো গ্যাস ছুড়তে হয়। তাছাড়া উত্তর কাছাড় পার্বত্য পরিষদের সামনে বনধ সমর্থককারীরা একটি বলেরো গাড়ীতে আক্রমন করে ভাঙ্গচুর করে এবং পরিষদ সচিবালয়ে কর্মীদের সচিবালয়ে ঢুকতে বাধা প্রদান করলে শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বনধ সমর্থককারীদের পুলিশকে লক্ষ্য করে কেটিবল চালাতে থাকে পিকেটার্সরা। বাধ্য হয়ে এদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড কাঁদানো গ্যাস নিক্ষেপ করে। তারপর দুপুর দেড়টা নাগাদ সিনড রোটারির কাছেই বনবিভাগের ডিএফও রমেন দাসের বলেরো গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে  বনধ সমর্থককারীরা। 
উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত পরিষদ সচিবালয়ে একটি পর্যালোচনা সভা শেষ করে নিজের বাসভবনে ফেরার পথে বন সমর্থককারীরা গাড়ী আটকে ডিএফও রমেন দাসকে গাড়ী থেকে নামিয়ে গাড়ীতে আগুন ধরিরে দেয়। তাছাড়া হাফলং ডিসগাও রাজিতে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে পাথর বৃষ্টি এতেও কিছু লোক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এভাবেই মঙ্গলবার গোটা দিন হাফলং শহরের বিভিন্ন স্থানে চলে এধরণের সংঘর্ষ আর এতেই বেশ কয়েকবার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে এবং পিকেটারসদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশকে কাঁদানো গ্যাস ছুড়তে হয়েছে। এদিকে পুলিশ শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরামের কার্যকরী সভাপতি সামসুদ্দেনবে জেমি এবং ইন্ডিজেনাস স্টুডেন্টস ফোরামের সভাপতি ডেভিড কেভম সহ বেশ কিছু পিকেটার্সকে গ্রেফতার করে। এদিকে ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরামের আহুত অনিদৃষ্টকালের বনধের পরিপ্রেক্ষিতে জেলাপ্রশাসন ও উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত পরিষদের নর্মাল সেক্টরের প্রধান সচিব এক নির্দেশে কর্মচারীদের আজ কার্যালয়ে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দিলে ও সরকারি কার্যালয় গুলিতে উপস্থিতির হার ছিল নগন্য। এদিকে ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরামের ডাকা ডিমা হাসাও জেলা বনধ ছিল আংশিক জেলার সদর শহর হাফলং মাহুর ও হারাঙ্গাজাওয়ে বনধ কিছুটা পালিত হলে ও জেলার মহকুমা সদর মাইবাং লাংটিং হাতিখালি উমরাংসো দিহাঙ্গী দিয়ুংমুখে বনধের কোনও প্রভাব পড়ে নি। এদিকে হাফলঙে বনধের দরুন বাজার হাট দোকান পাট ব্যাঙ্ক পোষ্ট অফিস সবই ছিল বন্ধ। এদিকে তথ্য ও জনসংযোগ বিভাগের দুই কর্মী সেইহিন চাংসন ও স্যামুয়েল নামপুই নিজ কার্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে পিকেটার্সরা ওই দুই কর্মী আটকে মারপিট করে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষা এবং বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। তবে ইন্ডিজেনাস স্টুডেন্টস ফোরামের এই অনিদৃষ্টকালীন ডিমা হাসাও বনধে বিপাকে পড়েছেন ছাত্রছাত্রীরা। এবং চিন্তিত হয়ে পড়েছেন ছাত্রছাত্রীর অবিভাবকরা। এদিকে বনধকে ঘিরে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ার জেরে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট অমিতাভ রাজখোয়া সমগ্র জেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেন। এদিকে এই প্রতিবেদন পাঠানো পর্যন্ত হাফলং শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে থাকলে ও তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে অবশেষে রাজ্যসরকারের কাছ থেকে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিসপুরে বৈঠকের আমন্ত্রন পেয়ে বনধ প্রত্যাহার ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফরামের। আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিসপুরে বিকেল চারটায় রাজ্যের শিক্ষা স্বাস্থ্য ও অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার সঙ্গে পৃথক জেলা গঠনের দাবি নিয়ে ইন্ডিজেনাস পিপোলস ফোরাম ও ইন্ডিজেনাস স্টুডেন্টস ফোরাম ও ইন্ডিজেনাস উইম্যান ফোরামের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে জেলাশাষক অমিতাভ রাজখোয়ার মাধ্যমে বৈঠকের আমন্ত্রন পাওয়ার পরই অনিদৃষ্টকালের ডিমা হাসাও বনধ প্রত্যাহার করার কথা ঘোষনা করে সংগঠনটির সাধারন সম্পাদক এল লিমা কেভম। 

No comments

Powered by Blogger.