Header Ads

গুয়াহাটিতে বিজেপির বুথ সম্মেলন সম্পন্ন,



অসম চুক্তি ৬ নম্বর দফা আসামের ভালোর জন্যই রূপায়ণ করা হবে: জেপি নড্ডা।

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন।
 গুয়াহাটির খানাপারা স্থিত পশু চিকিৎসালয় মহাবিদ্যালয়ের ময়দানে অনুষ্ঠিত হয় বিজেপির বুথ সম্মেলন। শনিবার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের সমর্থনে অসম রাজ্যে বিজেপির উদ্যোগে আয়োজিত এই বুথ  সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে কয়েক হাজার লোক।এই বুুুথ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে রাজ্যের বুথ প্রেসিডেন্টরা।  এর সাথে এদিনের সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির কার্যকারী সভাপতি জেপি নাড্ডা, দলের রাষ্ট্রীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব, মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল রাজ্যিক বিজেপির সভাপতি রঞ্জিত দাস, রাজ্যের বিত্ত মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা সাথে আরো অনেক বরিষ্ঠ নেতা এবং কর্মীরা এই বুথ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে। এই সম্মেলনে উপস্থিত থেকে জেপি নাড্ডা  বলেন যে অসম চুক্তি ৬ নম্বর দফা অসমের ভালোর জন্যই রূপায়ণ করা হবে ।অসমের অস্তিত্ব ও সংস্কৃতি রক্ষা করাটা আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। রাজ্যে অব্যাহতভাবে  চলে থাকা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বাতিলের দাবিতে তীব্র প্রতিবাদ চলার সময় বিজেপি লোকের মনে সজাগতা বৃদ্ধির জন্য এই  বুথ সম্মেলনের আয়োজন করে।  এদিনের সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোযাল বলেন যে বর্তমানে বিজেপি সরকার সমস্ত কাজ স্বচ্ছতার সাথে করে আসছে । নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন  (কা)নিয়ে রাজ্যে ভুল  অপপ্রচার চালানো হয়েছে ।নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন রাজ্যে কোনো প্রভাব ফেলবে না। চলতি বছর মার্চ মাসের ভেতরেই সরকার ১ লাখ ভূমিপুত্রকে মাটির পাট্টা দেওয়া হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। আসামে বসবাস করা প্রতিটি জাতি জনজাতি ও ভাষা , সাহিত্য-সংস্কৃতি রক্ষার জন্য ভাষা গৌরব প্রকল্পের সাহায্যে  সহায়তা প্রদান করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি সরকারের শাসনের সময়ে  অসমের লোকেরা সুরক্ষিত ।তিনি আরো বলেন যে সমগ্র আসামে এখন এই রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র চলছে ।বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করার চক্রান্ত করে কিছু অসাধু লোকেরা নিজেদের দখলে আনার চেষ্টা করছে এবং তারাই অসমের প্রধান শত্রু । এই বুুুথ সম্মেলনে বিত্ত মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা  অসম আন্দোলনের ৮৫৫ জন শহীদের কথাও উল্লেখ করে আবেগিক হয়ে পরেন। তিনি বলেন যারা গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নামে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছে তাদের ভারতীয় জনতা পার্টি প্রত্যুত্তর দেবে ।  তিনি কংগ্রেসের সমালোচনা করে বলেন যে কংগ্রেস  আন্দোলনকে সমর্থন করেননি ।মুসলমানের নাম অন্তর্ভুক্ত না হবার জন্য ক্যাবের বিরোধিতাযই করেছে শুধু। আজ অসমের অতিরিক্ত লোকের বোঝা উঠানোর   একমাত্র কারণ হচ্ছে কংগ্রেস।সর্বানন্দ সোনোয়াল মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর আসামে একজন বিদেশী প্রবেশ করতে পারেনি।

No comments

Powered by Blogger.