Header Ads

ক্লাস বর্জন করে ছাত্ররা আন্দোলনে যোগ দিতে পারবে না, আবাসিক ছাত্রদের মেস খরচ দেবে, শিক্ষকদেরও আন্দোলন থেকে দূরে থাকতে বললেন হিমন্তবিশ্ব শর্মা



অমল গুপ্ত,  গুয়াহাটি : অসমে কা বিরোধীদের আন্দোলনে প্রধানত কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করেছে, সুপ্রিমকোর্ট আজ নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের ওপর স্থগিতাদেশ না দিয়ে চার সপ্তাহ বাদ শুনানির দিন ধ্যার্য করেছেন এবং অসম ও ত্রিপুরার বিশেষ পরিস্থিতিতে পৃথকভাবে শুনানির ব্যাবস্থা করেছে। এরপরও আজ কটন ও ডিব্রুগড় বিশ্ববিদ্যালয় সহ অধিকাংশ কলেজের ছাত্রছাত্রীরা ক্লাস বর্জন করেন। ছাত্র সমাজ এই কা বিরোধী আন্দোলন থেকে দূরে থাকে তার জন্যে শিক্ষামন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা আজ  লোভ ও ভয় দুই রাস্তায় হাঁটলেন। কলেজের অধ্যক্ষদের সতর্ক করে ঠায়ে ঠয়ে জানিয়ে দিলেন কা বিরোধী সহ যে কোনো আন্দোলনে কলেজ শিক্ষকরা সামিল হলে  সরকারি শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে। ক্লাস ছেড়ে কোনো শিক্ষক বা সরকারি কর্মচারী মন্ত্রীদের সঙ্গে দেখা করতে যেতে পারবে না। কলেজে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেলে থাকা আবাসিক ছাত্রছাত্রীদের এবং মেডিক্যাল ও ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রছাত্রীদের সরকার 10 মাস 700 টাকা করে মেস খরচা হিসাবে তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা দেওয়া হবে। বছরে দুমাস হোস্টেল বন্ধ থাকে। তাই 10 মাস মোট 7 হাজার টাকা জমা দেবে সরকার। 1 এপ্রিল থেকে তা বাস্তবায়িত হবে। 10 ফেব্রুয়ারির মধ্যে সরকার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দেবে। এই সুযোগ দেওয়ার বিপরীতে আবাসিক ছাত্রছাত্রীদের কিছু দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা। ক্লাস থাকাকালীন কোনো ছাত্র কোনো আন্দোলনে যোগ দিতে পারবে না। প্রায় 20 হাজার ছাত্রছাত্রী এর ফলে উপকৃত হবে। তিনি বলেন ছাত্র সমাজ বৌদ্ধিক জগতের অঙ্গ, এমন কোনো কাজ করা উচিত নয়, যাতে সামগ্রিকভাবে রাজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মন্ত্রী চলতি কা বিরোধী আন্দোলনে সামিল না হওয়ার জন্য এই মেস খরচের প্রলোভন দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

No comments

Powered by Blogger.