Header Ads

গুয়াহাটির চাঁদমারিতে আনন্দরাম বরুয়ার 131তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন




প্রায় 35 বছরের বোশী হল, আজকের এই মৃত্যু দিবসটি বিবেকানন্দ কল্যাণ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে আমরা পালন করে আসছি : জহরলাল সাহা

নকুল রায়, গুয়াহাটি, 19 জানুয়ারি : প্রতি বছরের মতো এবারও লালগণেশ, ওদালবাক্রার বিবেকানন্দ কল্যাণ কেন্দ্র জাতীয় শিক্ষা নিকেতন স্কুলের পক্ষ থেকে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে জহরলাল সাহা গুয়াহাটির চাঁদমারিতে ভারত গৌরব আনন্দরাম বরুয়ার 131তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন করেছেন অনুষ্ঠান আরম্ভ করা হয় ছাত্রছাত্রীদের কণ্ঠে গাওয়া "বন্দে মাতরম্" দিয়ে আমিন্ত্রত অতিথি নিউ হরাইজনের প্রেসিডেন্ট বৈকুণ্ঠ চেতিয়া প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে অনুষ্ঠান পরিচালনা করে তিনি বেলন, "আনন্দরাম বরুয়া একজন ভারতীয় ভ্রাতৃত্ববোধের আকুণ্ঠ প্রবক্তা ছিলেন তিনি একজন প্রতিভাসম্পন্ন ব্যক্তি হিসাবে পরিচিত ছিলেন" মাল্যার্পণ করেন আমিন্ত্রত অতিথি এক্স এম্বেসেডর বিনন্দ কুমার গগৈ বিনোদ কুমার গগৈ বেলন, "আনন্দরাম বরুয়া ভারতের ষষ্ঠ আইসিএস অফিসার ছিলেন তিনি সংস্কৃত বিষয়ে বড় পণ্ডিত ছিলেন তিনি জীবনে সংস্কৃত ভাষায় অনেক কবিতা, শ্লোক প্রভৃতি লিখেছেন"
অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ও স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে ভারত গৌরব আনন্দরাম বরুয়া সম্পর্কে অল্প সময়ের একটি আলোচনা সভারও আয়োজন করা হয় সভায় স্কুলের প্রধান শিক্ষক জহললাল সাহা বলেন, "আনন্দরামের জন্ম হয়েছিল 1850 সালের 21 মে মাসে এবং তাঁর মৃত্যু হয়েছিল 1889 সালের 19 জানুয়ারিতে তিনি বলেন, আজ আনন্দরাম বরুয়ার 131তম মৃত্যু বার্ষিকী ও 132তম প্রয়াণ দিবস আজ প্রায় 35 বছরের বেশী হল, আজকের এই মৃত্যু দিবসটি বিবেকানন্দ কল্যাণ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে আমরা প্রতি বছর পালন করে আসছি সকলের মধ্যে সংস্কৃতের প্রতি প্রেম ও ভালোবাসা জাগিয়ে তুলতে হবে এবং সংস্কৃতের মধ্য দিয়ে ভারত প্রেম গড়ে উঠবে আর এই ভারত প্রেমেই অসমিয়া, বাঙালি, বিহারী, ওড়িশা প্রভৃতি সকলেই একাকার হয়ে যাবে এবং তখন আমরা সকলেই বিশ্বের দরবারে একটি শক্তি রূপে প্রতিষ্ঠা লাভ করতে সক্ষম হব"
অনুষ্ঠানে খগেন শর্মা বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, "আমাদের একজন বন্ধু জহরলাল সাহা, তার ক্লান্ত শ্রমের ফলে আজ আমরা সকলেই এখানে একসঙ্গে মিলিত হয়েছি তিনি যেন সবসময় আমাদের সঙ্গে থেকে আমাদের অনুপ্রণিত করুক যাতে তার যে উদ্দেশ্য সেটা যেন আমরা অসমের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে দিতে পারি এবং আমাদের অসমের মানুষজনের মধ্যে এই জাগরণ আনার জন্য এই উদ্দেশ্য যাতে সাফল্যমণ্ডিত হোক আপনাদের সকলের প্রতি সহায় সহযোগিতা কামনা করছি তিনি আরও বলেন, আগামী বছর ভারত গৌরব আনন্দরাম বরুয়ার জন্মদিবস এবং মৃত্যু দিবস পালন করে অসমের মানুষের প্রতি এবং এগিয়ে আসা নবপ্রজন্মের প্রতি প্রেরণা যোগাবো"
অনুষ্ঠানে উপস্থিত আমিন্ত্রত অতিথি লক্ষী ডেকা, খগেন শর্মা, নবীন চন্দ্র রাজখোয়া প্রমুখরা সহ স্কুলের প্রধান শিক্ষক জহললাল সাহা ও ছাত্রছাত্রীরা সকলেই আনন্দরাম বরুয়ার প্রতি পুষ্প অর্পণ করেন এবং শেষে সকলেই জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত করেন

No comments

Powered by Blogger.