Header Ads

উন্নাও ধৰ্ষণ কাণ্ডে দোষীসাব্যস্ত বিজেপির প্ৰাক্তন বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

নয়া ঠাহর ওয়েব ডেস্কঃ উন্নাও ধৰ্ষণ কাণ্ডে দোষীসাব্যস্ত বিজেপির প্ৰাক্তন বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারকে শুক্ৰবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল দিল্লি আদালত। সেই সঙ্গে ২৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এদিন এই রায় দিয়েছেন দিল্লি তিস হাজারি আদালতের বিচারক ধৰ্মেশ শৰ্মা। জরিমানার অঙ্কের ১০ লক্ষ টাকা নিৰ্যাতিতার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।
আদালতের রায়ে বলা হয়েছে- এক মাসের মধ্যে জরিমানা দিতে না পারলে সেঙ্গারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নিৰ্যাতিতাকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। গত সোমবার ভারতীয় দণ্ডবিধি ও পকসো আইনে সেঙ্গারকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। তারপর এই মামলার চারদিন শুনানির পর শুক্ৰবার রায় দেয় আদালত।  
ছবি, সৌঃ ইন্টারনেট
প্ৰসঙ্গত, ২০১৭ সালে নিৰ্যাতিতাকে ধৰ্ণ করে কুলদীপ সেঙ্গার। অভিযোগ- পড়শি শশী সিংয়ের ছেলে ও গাড়ির চালকও তাঁকে ধৰ্ষণ করে। এরপর নিৰ্যাতিতাকে গ্ৰামের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। প্ৰথমে পুলিশের কাছে নিখোঁজের অভিযোগ করে নিৰ্যাতিতার পরিবার। তারপর উদ্ধার হলে পুলিশে অভিযোগ জানাতে গেলে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছিলেন ক্ষোদ নিৰ্যাতিতা। এরপর ঘটে যায় বহু ঘটনা। মিথ্যে এফআইআর-এ তরুণির বাবা জেলে যান। বিচার পাবেন কি, বিচার চাওয়ার অপরাধে জেলে তার বাবার ওপর অকথ্য অত্যাচার করা হয়। বাবাকে হারান তরুণি। ময়নাতদন্তের রিপোৰ্টে তাঁর শরীর জুড়ে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। মৃত্যুর কারণ দেখানো হয় সেপ্টিসেমিয়া অথবা রক্তে বিষক্ৰিয়া।
নিৰ্যাতিতা তরুণিকে পথ দুৰ্ঘটনায় মেরে ফেলার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে কুলদীপের বিরুদ্ধে। তরুণি কোনও ভাবে বেঁচে গেলেও হারিয়েছেন কাকিমা ও বোনকে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভৰ্তি করানো হয় নিৰ্যাতিতা ও তাঁর আইনজীবীকে।

একের পর এক সাক্ষ্যপ্ৰমাণ খতিয়ে দেখার পর অবশেষে আদালত তার রায় দেয়। দোষী সাব্যস্ত করে বিজেপির প্ৰাক্তন বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারকে। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড শোনায় দিল্লি আদালত।

No comments

Powered by Blogger.