Header Ads

জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের বেতনহীন ২৮২ জন কর্মচারী তালা ঝুলিয়ে দিল হাফলং ডিভিশনের গেটে

     বিপ্লব দেব, হাফলং ১১ ডিসেম্বরঃ জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের সাত মাস থেকে বেতনহীন ২৮২ কর্মচারীর বেতন ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়ে হাফলং জনস্বাস্থ্য করিগরি বিভাগ কর্মচারী সংস্থা কার্যবাহী অভিযন্তা পিনাকী শঙ্কর করকে সময় সীমা বেঁধে দিলে ও এখন পর্যন্ত এই সব কর্মচারীর বেতন সমস্যার সমাধান না হওয়ায় বুধবার ২৮২ জন কর্মচারী জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের হাফলং ডিভিশনের গেটে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে সব কাজ কর্ম অচল করে দেয়। এমনকি বুধবার শহরে বন্ধ করে দেওয়া হয় জল সরবরাহ। 

উল্লেখ্য ডিমা হাসাও জেলায় সরকারি কার্যালয় গুলিতে অনলাইনে বেতন প্রদান শুরু হওয়ার পর থেকে রিটেনশন না থাকা কর্মচারীদের বেতন সমস্যার সৃষ্টি। রাজ্যের অর্থ বিভাগ রিটেনশন না থাকা কর্মচারীদের বেতন আটকে দেয় যার দরুন জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগ হাফলং ডিভিশনের ২৮২ জন কর্মচারী গত সাত মাস থেকে বেতনহীন। কর্মচারীদের অভিযোগ গত সাত মাস থেকে বেতন বন্ধ থাকার পর ও বিভাগের ভারপ্রাপ্ত অভিযন্তা পিনাকী শঙ্কর কর তাদের বেতন সমস্যা সমাধানে কোনও পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। তাই বাধ্য হয়ে বুধবার ওই সব কর্মচারী জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগ হাফলং ডিভিশনের কাজ কর্ম ২৪ ঘন্টার জন্য অচল করে দেয়। কার্যালয় চত্বরে বসেই পিনাকী শঙ্কর গো ব্যাক নো পে নো ওয়ার্ক ধ্বনিতে উত্তাল করে কার্যালয় চত্বর। বুধবার কর্মচারীদের বিক্ষোভ চলাকালীন পিনাকী শঙ শঙ্কর কর কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে কর্মচারীদের বলেন তাদের বেতন সমস্যার সমাধান হয়েছে ইতিমধ্যে ট্রাজারিতে কর্মচারীদের বেতনের বিল পাঠানো হয়েছে তবে ট্রেজারি অফিসার না থাকায় বেতন দেওয়া সম্ভব হয়নি কিন্তু পিনাকীবাবুর এসব কথা শুনতে রাজি হয়নি কর্মচারীরা তাদের দ দাবি বেতন চাই। না হলে বিক্ষোভ চলবে। জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত  অভিযন্তা পিনাকী শঙ্কর কর বুধবার সাংবাদিকদের জানান ২৮২ জন কর্মচারীর মধ্যে ২২৬ জন কর্মচারীর রিটেনশন এসে গেছে এবং এদের বেতনের বিল ইতিমধ্যে ট্রেজারিতে জমা দেওয়া হয়েছে এবং আগামী সোমবারের মধ্যেই ওই ২২৬ জন কর্মচারীর বেতন তাদের অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। তবে বাকি যে ৫৬ জন কর্মচারীর রিটেনশন আসেনি এদের রিটেনশন বা বেতন সমস্যার সমাধান হতে কিছুটা সময় লাগবে বলে জানান পিনাকীবাবু। এদিকে জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের কর্মচারী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুবল লংমাইলাই জানান যে ৫৬ জন কর্মচারীর বেতন সমস্যার সমাধান এখন পর্যন্ত হয়নি এদের সমস্যা সমাধান করার দায়িত্ব অভিযন্তা পিনাকী শঙ্কর করের এবং আগামী সোমবারের মধ্যে যদি ওই ৫৬ জন কর্মচারীর বেতন সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে মঙ্গলবার থেকে অনিদৃষ্টকালের জন্য জনস্বাস্থ্য কারিগরি বিভাগের কর্মচারী সংস্থা কর্মবিরতিতে যেতে বাধ্য হবে বলে জানান সুবল লংমাইলাই।

No comments

Powered by Blogger.