Header Ads

শুনানির জন্য কোর্টে নিয়ে যাওয়া মাত্র ধর্ষণে অভিযুক্তকে বেদম ধোলাই দিলেন আইনজীবীরা !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ

তেলেঙ্গানায় মহিলা পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ আর হত্যার পর অভিযুক্তদের এনকাউন্টার  করে খতম করে পুলিশ। দেশে মহিলাদের বিরুদ্ধে বর্ধিত অপরাধের কারণে গোটা দেশ এখন ক্ষোভে ফুঁসছে। মানুষ রাস্তায় নেমে ধর্ষণ আর ধর্ষকদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে। আর এই ঘটনার পর মধ্যপ্রদেশ থেকে আরেকটি
চাঞ্চল্যকর খবর উঠে এল।

মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর আদালতে শনিবার নাবালিকাকে ধর্ষণ করায় অভিযুক্ত এক ব্যাক্তিকে শুনানির জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। আর অভিযুক্তকে আদালত চত্বরে দেখে আইনজীবীরা তাঁকে তাড়িয়ে  তাড়িয়ে পেটান। পুলিশ কোনরকম ভাবে আইনজীবীদের হাত
থেকে ধর্ষণের অভিযুক্তকে বাঁচিয়ে আদালত পরিসর থেকে নিয়ে যায়।
সম্ভবতঃ ইন্দোর আদালত চত্বরে এই ঘটনা তখন ঘটেছিল যখন পুলিশ নাবালিকার ধর্ষণকারীকে শুনানির পর আদালত থেকে জেলে নিয়ে যাচ্ছিল। পুলিশকর্মীরা অভিযুক্তর মুখ ঢেকে বাইরে নিয়ে যাওয়ার সময় একজন আইনজীবী অভিযুক্তকে ঘুঁসি মারার চেষ্টা করেন। এরপর পিছন থেকে আরও কিছু আইনজীবী এসে অভিযুক্তকে পেটাতে শুরু করেন। এই দেখে পুলিশকর্মীরা কোনক্রমে উত্তেজিত আইনজীবিদের জটলা থেকে বের করে অভিযুক্তকে গেটের বাইরে নিয়ে গিয়ে পুলিশের গাড়িতে বসায়। এই ঘটনার পর প্রচুর পুলিশকর্মী দলবদ্ধভাবে অভিযুক্তকে সেখান থেকে বের করে নিয়ে যায়।
(Indore: Lawyers present at court premises attempted to thrash an accused in a minor girl rape case. The accused was brought to the court for a hearing in the case.)
ইন্দোর কোর্ট চত্বরে ধর্ষণে অভিযুক্তকে আইনজীবীদের মারধরের ঘটনা আসলে দেশ জুড়ে চলা ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রভাব। একদিন আগে তেলেঙ্গানার মহিলা ডাক্তারকে গণ ধর্ষণের পর তাঁকে জ্বালিয়ে মেরে ফেলা চার অভিযুক্তকে পুলিশ এনকাউন্টারে খতম করেছে। পুলিশের এই কাজে দেশ জুড়ে হায়দ্রাবাদ পুলিশের প্রশংসা হচ্ছে। আবার কিছু মানুষ এবং রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীরা এই ঘটনার বিরোধিতায় সরবও হয়েছেন।

No comments

Powered by Blogger.