Header Ads

আদালতের স্ট্রেঅর্ডারের ফলে শিক্ষক নিয়ােগের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে

আদালতে গিয়ে বার বার স্টেঅর্ডার আনার জন্য সরকারের কাজকর্মে বিশেষ করে শিক্ষক নিয়ােগের ক্ষেত্রে নানা প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। মাদ্রাসা শিক্ষক নিয়ােগের ক্ষেত্রে তিন বছর ধরে আদালতে মামলা চালানাে হচ্ছিল। যার জন্য কোনাে নিযুক্ত প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি। শিক্ষা বিভাগের চেষ্টার ফলে সরকারের জয় লাভ হয়েছে। নিযুক্তি প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্য। বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে এআইইউডিএফ-র হাফিজ বসির আহমেদ অভিযােগ করেন, রাজ্যে শিক্ষকদের ২ লক্ষ ২১ হাজার পদ আছে। তার মধ্যে ৪২ হাজার পদই খালি হয়ে আছে। তার এই জবাবে শিক্ষা মন্ত্রী সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্য একথা জানান।নুরুল হুদার এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী জানান, অসমের প্রাদেশিকীত এবং সরকারি শিক্ষক সহ বিটিএডি ও ষষ্ঠ তফশিলিভুক্ত এলাকায় উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলিতে ১৪৯১টি পদ খালি আছে। দুর্গা ভূমিজের এক প্রশ্নের জবাবে পঞ্চায়েত ও গ্রামােন্নয়ণ বিভাগের মন্ত্রী নব কুমার দোলে জানান, অসমের চা শ্রমিকদের দৈনিক হাজিরা বৃদ্ধি করে ৩৫১ টাকা করার প্রস্তাব করে মজুরি উপদেষ্টা পরিষদের কাছে বিবেচনার জন্য পাঠানাে হয়েছে। ওয়ান ম্যান কমিটি তা বিবেচনা করে দেখছে। অসমের চা বাগানের শ্রমিকদের ছুটির দিনে মজুরি দেওয়া হয় কিনা তা জানতে চাওয়া হলে মন্ত্রী জানান, অসম সরকার শ্রমিক কল্যাণ বিভাগের অধিসূচনা যােগে ছুটির দিনে মজুরি সহ ছুটি দেবার আদেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু চা বাগানের মালিক পক্ষ সেই অধিসূচনা মানে নি। বিষয়টি হাইকোর্টের বিবেচনাধীন হয়ে আছে। ওয়াজেদ আলি চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্য জানান, নারী শিক্ষা উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজ্যে নয়টি মহিলা কলেজ স্থাপনের সিদ্ধান্তহয়েছে। এর মধ্যে করিমগঞ্জ, হাইলাকান্দি, গােলকগঞ্জ, বিলাসীপাড়া, বটদ্ৰবা, সােনাই, চেঙা, জলেশ্বর, মঙ্গলদৈয়ে এই কলেজ স্থাপন করা হবে। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল হুদার এক প্রশ্নের জবাবে জানান, রাজ্যে বিদ্যালয়গুলিতে ছাত্রছাত্রীর অনুপাতে ৩০ জন ছাত্রপিছু একজন শিক্ষক নিয়ােগের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। রাজ্যে একজন শিক্ষকের থাকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা হচ্ছে ৩০৮৫। শিক্ষামন্ত্রী নজরুল হকের এক প্রশ্নের জবাবে জানান, অসমে বর্তমানে ২৬৯৫ টি অপ্রাদেশিকীত নিম্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২২৯৮টি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত উচ্চ প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৬৯২টি অপ্রাদেশিকৃত মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১২৬ টি অপ্রাদেশিকৃত উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং ১৭৮টি অপ্রাদেশিকৃত সিনিয়র সেকেন্ডারী বিদ্যালয় আছে। বিরােধী দলপতি দেবব্রত শইকিয়ার এক প্রশ্নের জবাবে সাংস্কৃতিক পরিক্রমা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী কেশব মহন্ত জানান, রাজ্যে কেন্দ্রীয় প্রাচীন কীৰ্তিচিহ্ন অধীনের অনুযায়ী ৫৫টি কীৰ্তিচিহ্ন চিহ্নিত করা হয়েছে। ১৩৫টি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান আছে। প্রশ্নোত্তর পর্বে গুরুজ্যোতি দাসের এক প্রশ্নের জবাবে সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্যী জানান, চলিত অর্থবছরে বিদ্যালয়গুলিতে আবার গুণােৎসব অনুষ্ঠিত হবে। ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে গুণােৎসব করার জন্য চেষ্টা চালানাে হচ্ছে। কিন্তু জানুয়ারির ১০ তারিখ থেকে ২২ তারিখ পর্যন্ত খেলাে ইন্ডিয়া’ অনুষ্ঠানের পরিপ্রেক্ষিতে গুণােৎসবের সময়সূচি কিছুটা পরিবর্তিত হতে পারে। এবার চা বাগানগুলিতেও গুণােৎসবকে সামিল করা হবে। বিধানসভায় আজ শিক্ষামন্ত্রী সিদ্ধার্থ ভট্টাচার্য ‘দ্য আসাম ওমেন ইউনিভার্সিটি (এমেণ্ডমেন্ট) বিল, ২০১৯ বিবেচনার জন্য পেশ করেন।

No comments

Powered by Blogger.