Header Ads

ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার চক্রান্ত, সতর্ক করলেন মুখ্যসচিব !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ

ষড়যন্ত্র করে ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার চক্রান্ত! চক্রান্ত করে তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার আশঙ্কা করছে রাজ্য প্রশাসন। সে কারণে নবান্ন থেকে সব জেলাশাসককে এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। রাজ্যের সব জেলাশাসককে টেলিফোন করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজ নেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। সেই সঙ্গে ভোটার তালিকা সংশোধনের সময় নাম বাদ দেওয়ার ক্ষেত্রে সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে বলে তাঁদের নির্দেশ দেন। যাতে অকারণে কারও নাম বাদ না দেওয়া হয়, সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে বলা হয়েছে। 

গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু হয়েছে। চলবে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। এই সময়ে নাম তোলার পাশাপাশি সংশোধন বা নাম বাদ দেওয়ারও সুযোগ রয়েছে। নাম তোলার জন্য যেমন ছয় নম্বর ফর্ম পূরণ করতে হয়, তেমনই নাম বাদ দেওয়ার জন্য সাত নম্বর ফর্ম পূরণ করতে হবে। আর সংশোধনের জন্য পূরণ করতে হবে আট নম্বর ফর্ম।
ষড়যন্ত্র করে ভোটার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার চেষ্টা হতে পারে বলে নবান্নের কাছে খবর রয়েছে। কোনও সংগঠন তা করতে পারে। সে কারণেই জেলাশাসকদের সতর্ক করা হল।
উল্লেখ্য, জেলাশাসকরাই হলেন নির্বাচন কমিশনের জেলা নির্বাচনী আধিকারিক। তাঁদের তত্ত্বাবধানেই ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ হয়। তাই নাম বাদ দেওয়ার যেসব আবেদনপত্র (সাত নম্বর ফর্ম) জমা পড়বে, তা সতর্কতার সঙ্গে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
সেই সঙ্গে নাগরিকত্ব বিল নিয়ে গোটা দেশ যেভাবে প্রতিবাদের আগুনে জ্বলছে, সে কথা মাথায় রেখে জেলা প্রশাসনকে সতর্ক করা হয়েছে। গোলমাল হতে পারে, এমন জায়গায় নজরদারি বাড়াতে বলা হয়েছে। কোন জেলায় আইনশৃঙ্খলার কী অবস্থা, তার খোঁজ নিয়েছেন মুখ্যসচিব।
তিনি উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গ মিলিয়ে ২২টি জেলার জেলাশাসককে টেলিফোন করে পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজ নিয়েছেন এবং সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। নবান্ন থেকে প্রতি মুহুর্তে নজরদারি করছেন মুখ্যসচিব। এমনকী তিনি নিজে তাঁর জেলাসফর বাতিল করেছেন।
উল্লেখ্য, এদিন তাঁর বীরভূমের দেউচা পাচামি যাওয়ার কথা ছিল। দেশ জুড়ে যেভাবে বিক্ষোভ হচ্ছে, সে কথা মাথায় রেখে একইরকমভাবে রাজ্য পুলিসের পক্ষ থেকে প্রতি জেলার পুলিস সুপার, পুলিস কমিশনারকে সতর্ক করা হয়েছে। সেই সঙ্গে কলকাতা পুলিসকেও সতর্ক করা হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.