Header Ads

জামিয়াকাণ্ডে কি ষড়যন্ত্রের গন্ধ ! 'পেট্রোল বম্ব' নিয়ে কোন গোপন বার্তা ঘিরে পুলিশ কোন ইঙ্গিত দিচ্ছে !!



বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ দিল্লিতে রবিবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত একাধিক অগ্নিগর্ভ ছবি উঠে এসেছে। প্রথমে দিল্লিতে বাসে অগ্নিসংযোগ। তারপর জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের মিছিল ঘিরে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় রাজধানী। গোটা ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্যাম্পাসে ঢোকা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন দেশের বিশিষ্টজন থেকে বিরোধী দলের নেতারা।
ঘটনার ২ দিনের মাথায় দিল্লি পুলিশ জামিয়াকাণ্ডে ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতরা কেউই পড়ুয়া নয়। এরপর থেকেই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। একাধিক তথ্য উঠে আসছে পুলিশের সামনে। উঠে আসছে হোয়াটসঅ্যাপে পেট্রোল বম্ব চালাচালির সঙ্কেত। এমনই দাব দিল্লি পুলিশের।
জামিয়া কাণ্ডকে কেন 'ষড়যন্ত্র' বলছে পুলিশ? রবিবারের হিংসা ঘিরে বেশ কয়েকটি হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ এসে পৌঁছেছে পুলিশের হাতে। যেখানে দেখা গিয়েছে 'পেট্রোল বম্ব' মজুত রাখবার কথা বলা হয়েছে কয়েকজনকে। আর বিশাল পুলিশবাহিনী আসবে আঁচ করেই এমন সমস্ত মেসেজ চালাচালি হয়েছিল রবিবার সন্ধ্যে থেকে। ভেজা কম্বল ও হোয়াটস অ্যাপ বার্তায় পুলিশের প্রশ্ন, যদি সেদিন শান্তিপূর্ণভাবেই মিছিল করার পরিকল্পনা ছিল, তাহলে কেন 'ভেজা কম্বল' মজুত রাখবার কথা বলা হয়েছে?
পুলিশের কাছে আরও বেশ কয়েকটি হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের তথ্য এসে পৌঁছেছে যেখানে 'ভেজা কম্বল' মজুত রাখবার কথা বলা হয়েছে টিয়ার গ্যাস মোকাবিলা করতে। আর এই মেসেজ নিয়েই সন্দেহ বাড়ছে পুলিশের মধ্যে।
দিল্লির পুলিশ সূত্রের দাবি, যেভাবে গোটা জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া চত্বরে বিক্ষোভের আগুন জ্বলেছিল তার সঙ্গে কাশ্মীরে একাধিক বিক্ষোভের ঘরানার মিল রয়েছে। পুলিশের দাবি, কাশ্মীরেও একই 'প্যাটার্ন' মেনে বিক্ষোভ হয়েছে বিগত কয়েক বছরে।
দিল্লির ঘটনাতে এখনও পর্যন্ত ধৃত ১০ জন। এরা প্রত্যেকেই স্থানীয় দুষ্কৃতী বলে পরিচিত। পুলিশ বলছে , এরাই সেদিন অশান্তি ছড়াতে শুরু করে। তবে এই ১০ জনের গ্রেফতারিতেই থেমে থাকবে না পুলিশ। দিল্লি পুলিশ সূত্রের খবর , আরও বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করতে পারে পুলিশ।

No comments

Powered by Blogger.