Header Ads

‘বুলবুল’-বিধ্বস্ত বাংলা, উত্তরবঙ্গ সফর বাতিল করে বকখালি পরিদর্শনে যাচ্ছেন মমতা

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : বাংলার বুকে শনিবার আছড়ে পড়েছিল ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। সেই কারণে সারা রাত নবান্নে বসে নজরদারি চালিয়েছেন মু্খ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাতেই সুন্দরবনের বকখালি ও তৎসমলগ্ন অঞ্চলে তাণ্ডব চালিয়ে বাংলাদেশে ধেয়ে যায় বুলবুল। রবিবার সকালেই মমতা ঘোষণা করেন, তিনি ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাবেন।
সোমবার তাঁর উত্তরবঙ্গ সফরে যাওয়ার কথা ছিল। উত্তরবঙ্গের কোচবিহার সফর বাতিল করে তিনি সোমবারই বহকখালি যাচ্ছে। আকাশপথে তিনি বকখালি ও নামখানার ঝড়বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করবেন। দুর্গত মানুষদের পাশে দাঁড়াতে তিনি কাকদ্বীপে ফিরে প্রশাসনিক বৈঠকও করবেন। এরপর মঙ্গলবার তিনি যাবেন বসিরহাটে। সেখানকার পরিস্থিতিও খতিয়ে দেখবেন। 
বুলবুলের তাণ্ডবে কতটা ক্ষতি হয়েছে এলাকার তা খতিয়ে দেখেই প্রয়োজনীয় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইট করে তিনি এই বার্তা দিয়েছেন। সেইসঙ্গে বুলবুলের হানায় দুর্গত মানুষদের পাশে থাকার বার্তাও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। 
বুলবুলের পর ৯টি জেলার ডিএমের রিপোর্ট নবান্নে এসে পৌঁছেছে। এই রিপোর্টে বলা হয়েছে ৯ জেলায় ৩ লক্ষেরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। ৭ হাজারেরও বেশি বাড়ির ক্ষতি হয়েছে। প্রায় ৯ হাজার গাছ উপড়ে পড়েছে। ৯৫০টি মোবাইল টাওয়ার ভেঙে পড়েছে। 
বুলবুলের প্রভাবে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বকখালি। এছাড়া ঝড়ের প্রভাব পড়ে ঝড়খালি, ফ্রেজারগঞ্জ, নন্দীগ্রাম, নয়াচর, হিঙ্গলগঞ্জ, সন্দেশখালি, খেজুরি প্রভৃতি এলাকা। 
এখন পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। এই পরিস্থিতি বিচার করে উত্তরবঙ্গ সফর বাতিল করে মমতা যাচ্ছেন বিধ্বস্ত এলাকায়। এরই মধ্যে প্রধামন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ফোন করে সমস্তরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।

No comments

Powered by Blogger.