Header Ads

হাইলাকান্দি জেলা সৈনিক কল্যাণ কার্যালয়ের বীর শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, হাইলাকান্দি : সম্প্রতি, গতকাল ৮ নভেম্বর হাইলাকান্দি শহরের স্থানীয় রবীন্দ্র ভবনে জেলা সৈনিক কল্যাণ কার্যালয় কর্তৃক হাইলাকান্দি জেলার বীর শহিদ তথা প্রয়াত শহীদদের পরিবারের প্রতি সম্মান প্রদর্শনে এক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর অব জেলা সৈনিক বোর্ড (গৌহাটি) এর অধিকর্তা তথা অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার এন. বি. যোশী। তাছাড়াও সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন হাইলাকান্দির জেলা উপায়ুক্ত (আই. এ. এস) শ্রীমতী কীর্তি জিল্লী, হাইলাকান্দি জেলা সৈনিক কার্যালয়ের অধিকর্তা জি. সি. নাথ। 
উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে প্রয়াত সৈনিকদের অর্ধাঙ্গিনীদেরকে উত্তরীয় দিয়ে সম্মান প্রদান করা হয়। এছাড়াও, গতকালের আয়োজিত অনুষ্ঠানের উল্লেখযোগ্য বিষয় ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত বীর শহীদ প্রয়াত আব্দুল লতিফ লস্করের বৃদ্ধা স্ত্রী আলকুন নেছা লস্করকে বিশেষ সম্মান প্রদান। তিনিও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। তাঁকেও সৈনিক কার্যালয়ের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে সম্মান প্রদর্শন করে মঞ্চে বরণ করা হয়। তখন প্রেক্ষাগৃহে উপস্থিত সকলে তথা মঞ্চে উপবিষ্ট অতিথিরাও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত বীর শহীদের স্ত্রীকে কাছে পাওয়ার আনন্দে আপ্লুত হন এবং তাঁকে সম্মানিত করে গর্ববোধ করেন। তাছাড়াও, অনুষ্ঠানে অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকদের নানাপ্রকার সুযোগ সুবিধার কথাও আলোচনা করা হয় এবং সরকার কর্তৃক প্রদেয় সকলপ্রকার সুবিধা গ্রহণ করার পদ্ধতি গ্রহণের উপায় উত্থাপন করা হয়। 
অনুষ্ঠানে মাননীয়া জেলাশাসক কীর্তি জিল্লী ভারতীয় সৈনিকদের প্রতি সম্মান সূচক বক্তব্য প্রদান করেন এবং একই সঙ্গে অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকদের ও তাদের পরিবারকে জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রয়োজনীয় যথাসম্ভব সাহায্য প্রদান করার অঙ্গীকার করেন। তাছাড়াও, উক্ত অনুষ্ঠানে কিছু সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। শিশু নৃত্য শিল্পী শ্রীমতী নন্দিনী চৌধুরীর স্বচ্ছ ভারত অভিযানের " মেরে দিল সে আ রহী হে অওয়াজ" গানের নৃত্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। তারপর একে একে প্রভিডেন্স পাব্লিক স্কুল লালা, লালা রুরেল কলেজ, স্প্রিং ভেলী স্কুল হাইলাকান্দি, প্রনবানন্দ বিদ্যাপীঠ লালা, পায়নীওর একাডেমী লালা, মর্নিং গ্লোরী লালা সহ বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের গান এবং নাচ দর্শকদের মন জয় করে। অনুষ্ঠান শেষে অংশগ্রহণকারী সকলকে মানপত্র ও পুরস্কার  দিয়ে জেলা সৈনিক কার্যালয় কর্তৃক সম্মান প্রদান করা হয় এবং উপস্থিত সবাইকে নিয়ে এক মধ্যাহ্ন ভোজনেরও আয়োজন করা হয়। গতকালের এই অনুষ্ঠানের সম্পূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন জেলা সৈনিক কল্যাণ সংস্থার মুখ্য কো-অর্ডিনেটর মহম্মদ ফয়াজ উদ্দিন বড়ভূইয়া। তিনি অনুষ্ঠানটি সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার জন্য উপস্থিত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

No comments

Powered by Blogger.