Header Ads

অযোধ্যায় ৫ একর জমি নেওয়া হবে কিনা সেটা ১৫ দিনের মধ্যে জানাবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : অযোধ্যা বিতর্কিত জমি মামলার রায়ে বাবরি মসজিদ তৈরির জন্য সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড সেই জমি নেবে কিনা সেটা আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিয়ে জানাবে তারা। সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান জাফর ফারুকি জানিয়েছেন এই নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ১৫ দিনের মধ্যে বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেই বৈঠকে মুসসিমদের অন্যান্য স্বার্থ রক্ষা নিয়েও সরকারের সঙ্গে আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
এর আগে খসড়া প্রস্তাবে একাধিক বিষয় উত্থাপন করেছিল সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। তারমধ্যে ছিল মুসলিমদের প্রার্থনা করার জায়গার রক্ষনাবেক্ষন করতে হবে সরকারকে। কিন্তু রায়দানের পরে পুরোটাই অন্যদিকে ঘুরে গিয়েছে। যদিও মুসলিম ল বোর্ড সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পুনর্বিবেচনার আবেদন জানাবে। শীর্ষ আদালতের এই রায় মানতে নারাজ তারা। যদিও জামাত উলেমা এ হিন্দের পক্ষ থেকে এই মামলা শেষ করার কথা বলা হয়েছে। এই মামলা এখানেই সমাপ্তি চান তাঁরা। অন্যদিকে আসাউদ্দিন ওয়াইসি আবার শীর্ষ আদালতের এই রায়ের ঘোর বিরোধিতা করে বলেছেন তথ্য নয় ধর্মীয় বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করেই রায় দেওয়া হয়েছে। তিনি ৫ একর জমি না নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। অন্যদিকে দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম সইদ আহমেদ বুখারি জানিয়েছেন, এই মামলা নিয়ে আর বেশি টানা হেঁচরা না করাই ভাল।
এদিকে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে অযোধ্যায় পাঁচ একর জমি দেওয়া হবে মসজিদ নির্মাণের জন্য। সেই জমি রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ কমপ্লেক্সের নিকটবর্তী অঞ্চলে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে সরবরাহ করা যাবে না। তবে কোথায় জায়া দেওয়া হবে ওয়াকফ বোর্ডকে। কোথায় গড়ে উঠবে মসজিদ? সূত্রের খবর, সরযূ নদীর অপর পাড়ে তৈরি হতে পারে মসজিদ।
অযোধ্যা শহরটি ঘনবসতিপূর্ণ। ফলে শহরের মধ্যে প্রস্তাবিত জমিটি পাওয়া খুব কঠিন হতে পারে। তাই বিকল্প জায়গা খোঁজা হচ্ছে মসজিদের জন্য। সব দিক বিবেচনা করেই অযোধ্যার অপেক্ষাকৃত ফাঁকা স্থান বেছে নেওয়া হতে পারে বিকল্প বাবরি মসজিদ নির্মাণের জন্য। 
বিকল্প জায়গা হিসেবে উঠে আসছে সরযূ নদীর তীরবর্তী স্থান। তবে যে তীরে রাম জন্মভূমি, তার বিপরীত তীরে কোনও জায়গা বেছে নিতে হবে। সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, অযোধ্যার মধ্যে ৫ একর জায়গা দেওয়া হবে। তবে সেই জায়গাটি কোথায় হবে, তা নির্দিষ্ট করা হয়নি। 
কয়েকটা সম্ভাবনা ক্ষেত্র উঠে এসেছে। তার মধ্যে একটি হল সরযু তীরবর্তী অঞ্চল। আর একটি জায়গা হল পঞ্চকোশি। যা ১৫ কিমি পরিধি পেরিয়ে অযোধ্যা-ফৈজাবাদ রোডে অবস্থিত। শাহজানওয়া গ্রামে মসজিদটি তৈরির প্রস্তাব দেওয়া হতে পারে। সেখানে বাবরের সেনাপতি মীর বাকীর সমাধিস্থল। অভিযোগ, তিনি মন্দিরটি ধ্বংস করে মসজিদটি নির্মাণ করেছিলেন। 
তবে এই গ্রামটি ১৫ কিলোমিটার পরিধির মধ্যে অবস্থিত। যদিও আদালত বিকল্প জমি দেওয়ার আগে সুন্নি ওয়াক্ফ বোর্ডের সাথে সমন্বয় করে চিহ্নিত করতে বলেছে। স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের একাংশ বলেছেন যে তারা ভেঙে দেওয়া বাবরি মসজিদের জায়গায় মসজিদ নির্মাণের জন্য কোনও জমি চান না। আবার এমন কথাও উঠেছে, তাঁরা আলোচনা করেই ঠিক করবেন কতটা জমি নেবেন, কোথায় জমি নেবেন।

No comments

Powered by Blogger.