Header Ads

জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ কেন্দ্রশাসিত প্রদেশ হতেই জারি হলো ১০টি বড় পরিবর্তন

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : ৩১অক্টোবর সারাদেশে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। সেই উপলক্ষে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে যাত্রা শুরু করেছে। বুধবার রাতেই জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যের স্ট্যাটাস মুছে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ নামের দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ধারা ৩৭০ বিলুপ্তির পর এখন এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হল আনুষ্ঠানিক ভাবে। এই ঘটনাকে ভারতের ঐতিহাসিক ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে। তবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ নামের কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল হওয়ার পর যে ১০ টি বড়ো পরিবর্তন হয়েছে তাও এবার দেখার বিষয়।
এতদিন জম্মু-কাশ্মীরে রাজ্যপাল নিযুক্ত হতেন--এবার দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে উপ রাজ্যপাল নিযুক্ত হলেন। জম্মু-কাশ্মীরে গিরিশচন্দ্র মুর্মু ও লাদাখে রাধাকৃষ্ণ মাথুরকে নিয়োগ করা হয়েছে। এতদিন যেটা একটা রাজ্যে হিসেবে পরিচিত পেত সেই রাজ্য এবার দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য পূর্নগঠন আইন অনুযায়ী, লাদাখ এবার বিনা বিধাসভার কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ও জম্মু-কাশ্মীর বিধাসভা যুক্ত কেন্দ্র শাসিত (দিল্লীর মতো) অঞ্চলে পরিণত হয়েছে। রাজ্যে কেন্দ্র’র আইন বলবৎ হতো না, এবার কমপক্ষে ১০৬ টি কেন্দ্রীয় আইন চালু হবে।
এর মধ্যে কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশন আইন, তথ্য অধিকার আইন, শত্রু সম্পত্তি আইন এবং কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্পগুলির পাশাপাশি জনসম্পত্তির ক্ষতি রোধ আইন অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। জম্মু-কাশ্মীরে ৩৫-এ থাকার ফলে একমাত্র রাজ্যের মানুষ সেখানে চাকরি পেত। এবার সেটার পরিবর্তনের পাশাপাশি জমির সাথে সম্পর্কিত ৭টি আইনেরও পরিবর্তন হবে। রাজ্য পুনর্গঠন আইন অনুসারে জম্মু ও কাশ্মীরের প্রায় ১৫৩ টি আইন বাতিল করা হবে যা রাজ্য পর্যায়ে সময়বিশেষে জারি করা হয়েছিল। তবে উভয় কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এখনও ১৬৬ টি আইন কার্যকর থাকবে। রাজ্যপূর্নগঠন আইনের সাথে সাথে বিধানসভার কার্যকাল ৬ বছরের জায়গায় অন্যান্য রাজ্যের মতো ৫ বছর হবে। জম্মু-কাশ্মীরে ৭ টি বিধানসভা আসন বাড়ানোর কাজও হতে পারে।

No comments

Powered by Blogger.