Header Ads

বিশ্বের প্রবীণতমার জীবনাবসান ১২৩-এ, তিন শতাব্দীকে দেখেছেন তিনি

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : বিশ্বের সবথেকে বর্ষীয়ান মহিলা রাশিয়ার তানজিলিয়া বিসেম্বেয়েভের জীবনাবসান হল। ২০১৬ সালে বিশ্ব রেকর্ডে সবথেকে বয়স্ক জীবিত ব্যক্তি হিসাবে তালিকাভুক্ত ছিলেন তানজিলিয়া। ১২৩ বছর বয়সে বিশ্বের প্রবীণতমার জীবন প্রদীপ নিভে গেল। তাঁর ছেলে শিন্টাস বিসেম্বেয়েভে তাঁর মায়ের মৃত্যুর খবরটি প্রচার মাধ্যমে জানান।
বিসেম্বেয়েভের জন্ম হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার আস্ট্রজান অঞ্চলের ইসলামগাজি গ্রামে। ১৮৯৬ সালের ১৪ মার্চ তাঁর জন্মের পর কেটে গিয়েছে ১২৩ বছর। তিনি অত্যন্ত অতিথিপরায়ণ ও উন্মুক্ত স্বভাবের মানুষ ছিলেন। সেই কারণে সকলেই তাকে শ্রদ্ধা করতেন। তাঁর পুত্র আরও বলেন, দয়া এবং জীবনের প্রতি ইতিবাচক মনোভাবই তার মায়ের দীর্ঘায়ু হওয়ার রহস্য ছিল। 
আস্ট্রজান অঞ্চলের ক্রাসনয়র্স্ক জেলার প্রধান নুরগালি বাইতেমিরভ বলেন, বিপুল সংখ্যক লোক শ্রদ্ধা জানাতে জানাজায় এসেছিল। বিসেম্বেয়েভ চার ছেলেমেয়ে। তিনি তাঁর কনিষ্ঠ পুত্র এবং পুত্রবধূর সঙ্গে থাকতেন। তাঁর দশজন নাতি-নাতনি, তেরো জন নাতি-নাতনির ছেলে-মেয়ে এবং তাঁদের দু'জন ছেলেমেয়ে ছিল। 
তিনি ১২০ বয়সে পৌঁছনো দ্বিতীয় ব্যক্তি। ফরাসী মহিলা জেন লুই ক্যালমেন্ট মোট ১২২ বছর ১৬৪ দিন দিন বেঁচেছিলেন। তাঁকে নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। ২০১৭ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার উত্তর ককেশাসের কাবার্ডিনো-বালকরিয়ার ১২৭ বছর বয়সী নানু শাভা প্রাচীনতম জীবিত ব্যক্তি ছিলেন। গত বছর জানুয়ারিতে তিনি মারা যাওয়ার পর তানজালিয়াই ছিলেন বিশ্বের প্রবীণতমা মহিলা !

No comments

Powered by Blogger.