Header Ads

মোদী সরকারের বড়ো কূটনৈতিক জয়: ফ্রান্সের সদনে পক-এর রাষ্ট্রপতির কার্যক্রম আটকে দিল ভারত

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : যত দিন যাচ্ছে, মোদী সরকারের কূটনৈতিক টিম দক্ষ হয়ে উঠছে। এমন এমন কাজ করে দেখাচ্ছে যা আন্তর্জাতিক মঞ্চ প্রশংসা করতে বাধ্য হচ্ছে। ভারতের কূটনীতিবিদরা প্রমাণ করে দিচ্ছেন যে এটা পন্ডিত চাণক্য এর জন্মভূমি। আসলে ভারত আন্তর্জাতিক মঞ্চে একের পর এক সাফল্য পেয়েই চলেছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে জর্জরিত পাকিস্তান আরও বড় ধাক্কা খেয়েছে। সূত্র মতে, ফ্রান্সের সদনের নিম্নকক্ষে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী মাসউদ খানের কর্মসূচি বাতিল করে দিতে পেরেছে ভারত।
ভারতীয় মিশন ফরাসী বিদেশ বিষয়ক মন্ত্রকের কাছে আপত্তি জানিয়ে একটি চিঠি লিখেছিল যার পরে  পক-এ প্রধানমন্ত্রীকে এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বাধা দেওয়া হয়। কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে জর্জরিত পাকিস্তানের কাছে এটা একটা বড়ো ঝটকা। ফ্রান্সে পাকিস্তান-অধিকৃত কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী মাসউদ খানের কর্মসূচি বাতিল করে পাকিস্তানের প্রচেষ্টা ব্যার্থ করেছে ভারত সরকার। বার্তা সংস্থা এএনআই সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে যে ফরাসী সংসদে (নিম্নকক্ষ) পাকিস্তান-অধিকৃত কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী মাসুদ খানের অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ করতে পেরেছে ভারত।
আসলে, মাসুদ খানের ফরাসী সংসদে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। এ সম্পর্কে তথ্য পাওয়ার পরে,ভারত পাকিস্তানের কুখ্যাত প্রচেষ্টা ব্যর্থ করার জন্য কূটনৈতিক প্রচেষ্টা শুরু করে। প্যারিসে ভারতীয় মিশন ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে একটি ডিমার্স জারি করেছিল, এরপরে ফ্রান্স সেই অনুষ্ঠানে মাসুদ খানকে অংশ নিতে দেয়নি। এটা ভারতের জন্য একটা ভালো সংবাদ। কারণ ভারত পক-কে নিজের অংশ মনে করে সেহেতু সেখানের কোনো প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিকভাবে নিজের প্রভাব দেখাক সেটা ভারতের জন্য শুভ হত না।
ভারত বুঝিয়ে দিয়েছে যে, পক নিয়ে ভারত একবারে নিশ্চিত হয়ে একীকরণ করার উপর জোর দিচ্ছে। পাকিস্তানও এটা অনুমান করতে পেরেছে যে ভারত সরকার পক-কে ভারতে একীকরণের জন্য কাজ করছে। তাই পাকিস্তান প্ল্যান মাফিক POK এর প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্ব দরবারে হাজির করার চেষ্টা করছে। কিন্তু ভারত সেই চেষ্টাকে ব্যর্থ করেছে। কাশ্মীর থেকে ধারা ৩৭০ অপসারণের পর থেকে পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাওয়ার মরিয়া চেষ্টা করছে। কিন্তু সব ক্ষেত্রেই সাফল্য ভারত-ই পেয়ে চলেছে।

No comments

Powered by Blogger.