Header Ads

বন্ধ হচ্ছে না বিএসএনএল, গুজব ছড়ানো হচ্ছে চারিদিকে জানালেন সংস্থার কর্তা

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : বিগত কয়েকদিন ধরে সরকারি দূরভাষ কোম্পানি বিএসএনএল আর এমটিএনএল-এর বন্ধ হওয়ার খবর আসছে। এবার এই খবরকে দূরসঞ্চার বিভাগ গুজব বলে আখ্যা দিয়েছে। দূরসঞ্চার বিভাগের শীর্ষ আধিকারিক অংশু প্রকাশ জানান, অর্থ মন্ত্রালয় সরকারি দূরসঞ্চার কোম্পানি  বিএসএনএলকে বন্ধ করছে না। অংশু প্রকাশ জানান, চারিদিকে যে খবর ছড়াচ্ছে সেটা সম্পূর্ণ গুজব।
আসলে, কিছুদিন ধরে এমন খবর রটছে যে অর্থ মন্ত্রী আর্থিক মন্দার জন্য বিএসএনএল আর এমটিএনএলকে বন্ধ করার পরামর্শ দিয়েছে। ওই খবরে এই কথা বলা হচ্ছে যে, ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকমিউনিকেশন (ডিওটি) বিএসএনএল  আর এমটিএনএল-এ বড়সড় বিনিয়োগ করার প্রস্তাব দিয়েছে, কিন্তু অর্থ মন্ত্রক এই প্রস্তাবকে নাকচ করে দিয়েছে। পাশাপাশি অর্থ মন্ত্রক বিএসএনএলকে বন্ধ করার প্রস্তাবও দিয়েছে বলে গুজব রটেছে। আর এই কারণেই দুরসঞ্চার বিভাগের তরফ থেকে বিষয়টি সম্পর্কে সঠিক বার্তা দেওয়া হয়েছে। বিভাগের শীর্ষ আধিকারিক অংশু প্রকাশের বিবৃতিতে গুজবের ইতি ঘটল।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এর নেতৃত্ব কেন্দ্রীয় মন্ত্রীপরিষদ বিএসএনএল আর এমটিএনএলকে পুনরুদ্ধার করার জন্য প্রস্তাবিত প্যাকেজের মঞ্জুরিও দিয়েছে। এরপর অর্থ মন্ত্রকের তরফ থেকে এই প্রস্তাবে ৮০ টি আপত্তি তোলা হয়েছিল। এই সমিতিতে অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ আর দূরভাষ মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদও ছিলেন।
সংবাদ সংস্থা পিটিআই’র সূত্র অনুযায়ী, বিএসএনএল আর এমটিএনএল-এর আর্থিক পুনরুজ্জীবনের জন্য ৯৫ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। কর্মীদের স্বেচ্ছায় অবসর নেওয়ার জন্য ২৯ হাজার কোটি, ৪জি স্পেকট্রামের জন্য ২০ হাজার কোটি আর ৪জি সেবার পুঁজিগত খরচ চালানোর জন্য ১৩ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস অনুযায়ী, ২০১৭ থেকে ১৮ এর মধ্যে বিএসএনএল এর ক্ষতি ৭ হাজার ৯৯২ কোটি টাকা। এর আগে ২০১৬-১৭ সালে কোম্পানির ক্ষতি হয়েছিল, ৪ হাজার ৭৮৬ কোটি টাকা। এই হিসেবে  গত আর্থিক বছরে ৩ হাজার ২০৬ কোটি টাকার বাড়তি ক্ষতি হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.