Header Ads

সন্ময়ের পাশে দাঁড়াল বিজেপি, মমতাকে সবক শেখাতে আইনি সাহায্যের বার্তা দিলীপের

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিল বিজেপি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ স্বয়ং জানিয়েছেন, সন্ময়বাবু চাইলে তাঁকে আইনি সাহায্য দেব বিজেপি। বিজেপি তাঁর লড়াইয়ে পাশে আছে। শুধু দিলীপবাবু এই বার্তা দিয়েই ক্ষান্ত থাকেননি, বিজেপির প্রতিনিধিদের তাঁর বাড়িতেও পাঠিয়েছেন।
দিলীপ ঘোষ সাংবাদিক সম্মেলনে মমতার সরকারকে এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যযায়কে একহাত নেন। তিনি বলেন, এ রাজ্যে যা হচ্ছে, ইরাক-সিরিয়াতেও তা হয় না। এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, রাজ্যের স্বৈরাচারী সরকার শেষ সীমায় পৌঁছে গিয়েছে। এবার তাঁদেরকে যোগ্য জবাব দেওয়ার সময় এসেছে।
রাজ্যের শাসক দলকে স্বৈরাচারী তকমা দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, সন্ময়বাবু অন্য দলের লোক। আমাদের বিরোধী দলের সদস্য তিনি। তবু আমরা তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছি, কারণ এ রাজ্যের শাসক দল স্বৈরাচারী হয়ে উঠেছে। আজকে সন্ময়বাবুকে গ্রেফতার করেছে, কাল এভাবে আমাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যেতে পারে। তাই আমাদের নৈতিক সমর্থন জানিয়েছি। প্রয়োজনে আইনি সাহায্যও দেব।
শনিবার কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের পাশে দাঁড়ান বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার, অগ্নিমিত্রা পাল প্রমুখ। জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, সন্ময়বাবুকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই গ্রেফতার করা হয়েছে। কারণ ওনার নির্দেশ ছাড়া এ রাজ্যে কোনও কাজ হয় না। সন্ময়বাবু নিজের লেখনী দিয়ে মমতার সরকারের সমালোচনা করেছিলেন বলেই তাঁকে গ্রেফতার হতে হল।
জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, গণতন্ত্রে সমালোচনা করার অধিকার থাকবে না! সেই অধিকারেই তো তাঁর লেখনী দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সমালোচনা করেছলেন সন্ময়বাবু। তিনি তো মমতাদেবীর মতো বিধানসভা ভাঙচুর করেননি। সামাজিক মাধ্যমে তাঁর লেখনী গর্জে উঠেছে, তাতেই সাইবার ক্রাইমের অপরাধে তাঁকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হল।
আজ সন্ময়বাবু শর্তাধীনে জামিনে মুক্ত হওয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে তাঁর ওপর দীর্ঘ সময় ধরে চলতে থাকা নির্মম পুলিশী অত্যাচারের বর্ণনা দিতে দিতে দৃশ্যতঃই কান্নায় ভেঙে পড়েন। তাঁর অভিযোগ যদি মিথ্যে না হয় তাহলে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হলে বিজেপি তাঁর পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.