Header Ads

রাজ্য বিজেপিতে এখন 'নতুন'দের দাপট ! দাঁড়িয়ে দেখছেন 'পুরনো'রা

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : রাজ্য বিজেপিতে এখন কার্যত নতুন আসাদের দাপট। এই ছবি অনেকটাই প্রকট হয়েছে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে অমিত শাহের সভায়। মঞ্চে যেখানে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন অর্জুন সিং, দুলাল বররা, সেখানে মঞ্চের নিচে অপেক্ষা করতে দেখা গিয়েছে শমীক ভট্টাচার্যের মতো পুরনো নেতাদের। নেতাজি ইন্ডোরে বক্তাদের তালিকায় নাম দেখা গিয়েছিল অর্জুন সিং, দুলাল বর, মেহফুজা খাতুনদের। ভারতী ঘোষের নাম থাকলেও, তিনি সময় মতো পৌঁছতে না পারায় বক্তৃতা দেওয়াটাই হয়নি।
নেতাজি ইন্ডোরে বক্তার তালিকায় জয়প্রকাশ মজুমদারের নাম না থাকলেও, তাঁকে এই মুহুত্রে বিভিন্ন জেলায় বক্তার তালিকায় দেখা যায়। অমিত শাহের ১ অক্টোবর নেতাজি ইন্ডোরের সভায় ১২ জন বক্তৃতা করেছেন। যাঁদের সংখ্যাগরিষ্ঠই 'নতুন'। এমন কি সব্যসাচী দত্ত যে দিন বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, সেদিন অমিত শাহের সামনেই বলার সুযোগ পেয়ে গিয়েছেন।
এই ছবির বিপরীত ছবিও দেখা গিয়েছে। দেখা গিয়েছে শমীক ভট্টাচার্যের মতো পুরনো নেতারা অপেক্ষা করছেন। অপেক্ষা করতে হচ্ছে রাজকমল পাঠকের মতো বর্ষীয়ান নেতাদেরও। তিনি রাজ্য বিজেপির সব সভাপতিও বটে।
সূত্রের খবর অনুযায়ী, ১ অক্টোবর নেতাজি ইন্ডোরের এই ঘটনার কথা বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সামনেও রাখা হয়েছে। তবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে ভারসাম্য বজায় রাখার কথা বলেছে বলেই সূত্রের খবর। তবে দিলীপ ঘোষ এই বিষয়টিকে আদি নব্যের ঠেলেঠেলি বলতেও রাজি নন। তিনি বলেছেন, মুখ চেনাতে নতুনদের জায়গা করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি পুরনোদের প্রতি দলের অগাধ আস্থা রয়েছে বলে বার্তা দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ।
এদিকে ২০২১-এ পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে জয় লাভের লক্ষ্যপূরণে এখন থেকেই সাংসদদের গুরুদায়িত্ব বণ্টন করে দিলেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। শুধু নিজের লোকসভা কেন্দ্রেই নয়, আরও দুটি কিংবা তিনটি করে কেন্দ্রের দায়িত্ব ভাগ করে নিতে হবে তাঁদের। রাজ্য বিজেপির কাছে এমনই সার্কুলার পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।
বাংলায় দলের সাংসদদের উদ্দেশ্যে অমিত শাহ এই বার্তা দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, ২০২১-এ কঠিন লড়াই। সেই লড়াই জিততে এখন থেকে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সেজন্য বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে প্রত্যেককে। সাংসদের আরও বেশি করে দায়িত্ব নিতে হবে।
সবাইকে দায়িত্ব ভাগ করে নিতে হবে উল্লেখ্য বাংলায় বিজেপির সাংসদসংখ্যা ১৮। দুই থেকে বেড়ে ১৮ হওয়ার সুবিধা নিতে হবে প্রত্যেককেই। প্রত্যেক সাংসদকে নিজের কেন্দ্র ছাড়াও অন্যান্য কেন্দ্রগুলিরও দায়িত্বও নিতে হবে। বাংলায় ক্ষমতায় আসতে কঠিন লড়াইয়ে সবাইকে দায়িত্ব ভাগ করে নিয়ে এগোতে হবে। সবাইকে দায়িত্ব ভাগ করে নিতে হবে উল্লেখ্য বাংলায় বিজেপির সাংসদসংখ্যা ১৮। দুই থেকে বেড়ে ১৮ হওয়ার সুবিধা নিতে হবে প্রত্যেককেই। প্রত্যেক সাংসদকে নিজের কেন্দ্র ছাড়াও অন্যান্য কেন্দ্রগুলিরও দায়িত্বও নিতে হবে। বাংলায় ক্ষমতায় আসতে কঠিন লড়াইয়ে সবাইকে দায়িত্ব ভাগ করে নিয়ে এগোতে হবে।
অমিত শাহ বলেন, বাংলায় বিজেপির অনুকূলে হাওয়া বইছে। লোকসভা ভোটে সাফল্যের পর এখন মিশন বাংলাকে সফল করতে সেই হাওয়াকেই বাস্তবে প্রতিফলিত করতে হবে। পুজোর পর থেকেই তাই কাজে নেমে পড়তে হবে। কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায় ও দিলীপ ঘোষদের সামনে রেখে এই যুদ্ধ জেতার পরিকল্পনা নিয়েছেন অমিত শাহ।
অমিত শাহ জানিয়েছেন, নিজের কেন্দ্র ছাড়া অন্য অন্তত দুটি কেন্দ্রের আন্দোলন ও প্রচার কর্মসূচির দায়িত্ব নিতে হবে। যে সব কেন্দ্র বিজেপির দখলে নেই সেই সব কেন্দ্রে বাড়তি নজর দিতে হবে। সেখানে জনসংযোগ ও দলের প্রভাব বাড়ানোর কৌশল নিয়েছে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব।

No comments

Powered by Blogger.