Header Ads

বিদেশি ট্রাইব্যুনালে মামলা চলাকালীন 'ক্যাব' পাস হয়ে যাবে : সাংসদ রাজদীপ রায়

অমল গুপ্ত, গুয়াহাটি : আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যের  প্রতিটি পরিবার অনলাইনের মাধ্যমে এনআরসির চূড়ান্ত  তালিকায় নাম দেখতে পারবেন। তবে যাদের নাম নেই তারা পারবেন না। নাম বাদ পড়া এনআরসি ছুটদের প্রত্যকের নামে চিঠি আসবে, সেই চিঠিতে নাম বাদ পড়ার কারণ লেখা থাকবে। সেই চিঠি পাওয়ার পর থেকে ১২০ দিন সময় পাওয়া যাবে। ওই ১২০ দিন সময় কবে থেকে শুরু হবে, তা নিয়ে এনআরসি ছুটরা ভয় ও উদ্বেগের সঙ্গে দিন গুনছে। এনআরসি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ভুল ও কারচুপি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ১৯ লাখের ও বেশি মানুষের নামে পাঠানো চিঠি ত্রুটিমুক্ত হবে তো? এখন থেকেই এই প্রশ্ন উঠেছে।
আজ শিলচর-এর বিজেপি সাংসদ রাজদীপ রায় জানান, যাদের নাম তালিকায় উঠেনি, বিশেষ করে হিন্দু বাঙলিদের কোনও চিন্তা নেই। ১২০ দিন পর বিদেশি ট্রাইব্যুনাল এ মামলা চলার সময়ের মধ্যে আগামী শীত কালীন সংসদের অধিবেশনে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়ে যাবে। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ রাজ্যে এসে  বসবাসকারিদের কোনো ভয় নেই। সাংবিধানিক রক্ষা কবচ পাবে তারা। 
আসাম চুক্তির আধারে নতুন করে ১৪ জনের কমিটি গঠন হয়। সেই কমিটি ১৯৫১ সালকে ভিত্তি বছর করে নাগরিকত্ব নির্ণয় করতে চায়। তার পরে আসা বাঙলি হিন্দু উদ্বাস্তুদের  ভাগ্যে কি ঘটবে? এই  প্রশ্নের জবাবে সংসদ রায় বলেন, তা করতে গেলে অসম চুক্তির সাংবিধানিক বৈধ্যতা খর্ব হবে, সংবিধান সংশোধন করতে হবে। তা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার, তা সহজ কথা নয়। বিষয়টি কেন্দ্র চিন্তা চর্চা করছে বলে রায়  টেলিফোনে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তবে কেন্দ্রীয় সরকার অসমের খিলাঞ্জিয়া বা ভূমিপুত্রর  স্বার্থের সঙ্গে কোনো আপস করবে না। প্রকৃত ভারতীয় নাগরিকের চিন্তার কোনো কারণ নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।

No comments

Powered by Blogger.