Header Ads

পুজোর বাংলায় দাপিয়ে বৃষ্টি, জোড়া ফলায় আগামী ৪৮ ঘণ্টা চলবে বর্ষণ, পূর্বাভাস

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার ছিল। বেলা বাড়তেই ভ্যাপসা গরম থেকে এল মুক্তি। বৃষ্টি শুরু হল দক্ষিণবঙ্গের জেলায় জেলায়। সেইসঙ্গে আগামী ৪৮ ঘণ্টার ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। মৌসুমী অক্ষরেখা সক্রিয় রয়েছে বাংলায়। আর মধ্যপ্রদেশে তারি হয়েছে নিম্নচাপ। দুইয়ের ফলায় আগামী দুদিন দুর্যোগের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।
আবহবিদরা ব্যাখ্যা করেছেন, মধ্যপ্রদেশের উপর তৈরি হওয়া নিম্নচাপ অক্ষরেখা দিঘা পর্যন্ত বিস্তৃত। তারই ফলে রাজ্যজুড়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। দিঘার ওপর দিয়ে বিস্তৃত রয়েছে মৌসুমী অক্ষরেখা। আছড়ে পড়ছে বড় ঢেউ। সমুদ্র উত্তাল থাকার কারণে মৎস্যজীবীদের আগামী ২৪ ঘন্টা সমুদ্রে না যেতে অনুরোধ করা হয়েছে।
এদিকে বঙ্গোপসাগরের ওড়িশা উপকূলের অদূরে নিম্নচাপের কারণেও গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টি হবে। উপকূলে বইবে ঝোড়ো হাওয়া। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস জানান, পাহাড় ও পাহাড় সংলগ্ন উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তরবঙ্গে মঙ্গল ও বুধবার হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হলেও, বৃহস্পতিবার থেকে হিমালয় সংলগ্ন পাঁচ জেলা দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারের কোনও কোনও জায়গায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।
দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ৪৮ ঘণ্টা ভারী ও মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা রয়েছে। শনিবার পর্যন্ত বর্ষণ চলবে। আর দক্ষিণবঙ্গে বর্ষণমুখর দিন কাটবে অন্তত দুদিন। এই বৃষ্টির ফলে পুজোর বাংলা খানিক অখুশিও। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির জেরে মন খুলে পুজোর বাজার করা যাচ্ছে না।
এমনিতেই বর্ষা পিছিয়ে গিয়েছে। তারপর লাগতার বৃষ্টি চলতে, পরিস্থিতি বেগতিক হয়ে যাবে। পুজোয় ব্যবসায়ী থেকে পুজো উদ্যোক্তা সকলেই চিন্তিত। এবার পুজো ভাসিয়ে দিতে পারে বৃষ্টি। সেই আশঙ্কাতেই এখন থেকে দিন কাটছে। সেইসঙ্গে প্রার্থনা পুজো কদিন যাতে বৃষ্টি না হয়।

No comments

Powered by Blogger.