Header Ads

শরণার্থী সম্পর্কে বিজেপির স্থিতি একই আছে, একজন অনুপ্রবেশকারীকেও গ্রহন করবে না স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ


অমল গুপ্ত, গুয়াহাটিঃ

ধর্মীয় নির্যাতনের বলি হয়ে যে সব হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষ এদেশে আসবে তাদের শরণার্থী হিসাবে গন্য করে ভারতে স্থান দেওয়া বিজেপি দলের  স্পষ্ট নীতি, সেই নীতি থেকে বিজেপি সরে আসেনি, সরে আসবেও না। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রবিবার গুয়াহাটিতে দলীয় স্থিতির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে একথা বলেন।



এদিন বিজেপি সভাপতি রঞ্জিত দাস, বনমন্ত্রী পরিমল শুক্লবৈদ্য, বিজেপি দলের সাংগঠনিক সাধারণ    সম্পাদক ফোনিন্দ্র নাথ দেব শর্মা প্রমুখ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর হাতে এক স্মারক পত্র তুলে দিলে অমিত শাহ স্পষ্ট নীতির কথা বলেন।
 এদিন এনইসি-র  ও নাড়া-র বৈঠকে যোগ দেবার জন্যে দু’দিনের সফরে এসে এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা নিয়ে সরকারের অসন্তোষ-এর কথা জেনে বলেন , প্রকৃত ভারতীয় নাগরিকদের ভয় ও শঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই, অসমে একজন অনুপ্রবেশকারীকেও মেনে নেওয়া হবে না, বিতাড়ন করা হবে।

 পরে মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল, রাষ্ট্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অজয় জামওয়াল, অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা প্রমুখদের সঙ্গেও এক  বৈঠকে বসেন। এনআরসি-র তালিকায় প্রকৃত ভারতীয় নাগরিক বিশেষ করে ১৯৬০, ১৯৬৫ সালে অসমে আসা হিন্দু বাঙালিদের লাখ লাখ নাম কাটা পরা বিষয়টি সভাপতি রঞ্জিত দাস,পরিমল শুক্লবৈদ্য এবং হিমন্ত বিশ্ব শর্মা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর করেন। রঞ্জিত দাস তাঁর পেশ করা   স্মারক পত্রে এনআরসি ছুট ভারতীয় নাগরিকদের বিস্তারিত জানিয়ে অভিযোগ করেন এনআরসি সমন্বয়ক প্রতীক হাজেলা দুই একটি সংগঠন কে সঙ্গে নিয়ে, তালিকায় ব্যাপক কারচুপি করছে।
 সুপ্রিমকোর্টের তত্ত্বাবধানে এই কাজ হলেও সরকারকে অন্ধকারে রেখে খেয়াল খুশি মত কাজ করেছে। এই তালিকা ব্যাপক সংশোধন ঘটিয়ে খিলাঞ্জিয়া,ভারতীয় নাগরিকের নাম অন্তর্ভুক্ত করতে হবে নতুবা তারা গ্রহণ করবে না। কেন্দ্রীয়  মন্ত্রী আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, ভারতীয় নাগরিকদের শঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। তিনি ইঙ্গিত দেন এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা সম্পর্কে, এবং বিভিন্ন প্রশ্ন নিয়ে পর্যালোচনা করার পর কেন্দ্রীয় সরকার তালিকা গ্রহণ করবে।

No comments

Powered by Blogger.