Header Ads

বিজেপি হিন্দু মুসলিম বিভাজনের রাজনীতি করছেঃ কমলাক্ষ্য

নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ

বিজেপি সরকার রাজ্যের মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে। আগে ৩১ জুলাই ৪১ লক্ষ মানুষের নাম বাদ পড়ল তখন মুখে কুলুপ এটে ছিল বিজেপি। ১৯ লক্ষেরও বেশি মানুষের নাম যখন বাদ পড়ল তখনই তারা হৈ চৈ করা শুরু করল। তারা প্ৰশ্ন তুল বরপেটা, ধুবড়িতে এতো কম সংখ্যক মানুষের নাম কেন বাদ পড়ল। বিজেপি সরকার মেরুকরণের রাজনীতি করছে। রবিবার দিসপুরে সরকারী আবাসনে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই অভিযোগ তোলেন উত্তর করিমগঞ্জের কংগ্ৰেস বিধায়ক কমলাক্ষ্য দে পুরকায়স্থ।

ছবি, সৌঃ ইন্টার্নেট
 তিনি আরও বলেন- রাজ্যের অৰ্থ মন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা বলেছিলেন গীতাপাঠ যারা করেন, রামের নাম যারা নেন তাদের নাম কোনওভাবেই এনআরসি থেকে বাদ পড়বে না। লক্ষ লক্ষ বাঙালি হিন্দুর নাম বাদ পড়ল। হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা বলেছিলেন - মুখ্যমন্ত্ৰী এনআরসি-র সমন্বয়ক প্ৰতীক হাজেলাকে বৈঠকের জন্য ডেকেছিলেন তাঁর অফিসে তবুও প্ৰতীক হাজেলা উপস্থিত হননি। কিন্ত হিমন্ত ঠিক বলেননি। প্ৰতীক হাজেলার সঙ্গে মুখ্যমন্ত্ৰীর বৈঠক হয়েছে। ১৯৯৭ সালে ডি ভোটারের মামলা রাজ্যে শুরু হয়। আজও সারা ভারতবৰ্ষে ডি ভোটারের মতো অদ্ভুত ভোটার নেই। তারা ভোটার, অথচ তারা সন্দেহজনক নাগরিক। তা কি করে হয়। প্ৰশ্ন তোলেন তিনি। এ নিয়ে হিন্দু মুসলিমের মধ্যে বিভাজন তৈরি হয়েছে। আজও তা সমাধান হল না। ১৯ লক্ষের ও বেশি মানুষকে এখন ট্ৰাইব্যুনালে দৌড়তে হবে। অশেষ যন্ত্ৰণা এবং অবৰ্ণনীয় অসহায় আৰ্থিক দুরবস্থার মধ্যে পড়তে হল বাঙালি সংখ্যালঘু মানুষগুলোকে।

No comments

Powered by Blogger.