Header Ads

ঈদের আগে পাকিস্তানের বাজারে হাহাকার, টম্যাটোর দাম ৫০০ টাকার উপরে, পেঁয়াজ, আলুতে হাত দেওয়া মুশকিল

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : ভারতের সাথে বাণিজ্য সম্পর্ক বাতিল করে পাকিস্তান ‘নিজের পায়ে কুড়ুল মারা’র প্রবাদটি যে সত্যি তা প্রমাণ করেছে। ভারতের সাথে বাণিজ্য বন্ধ থাকায় পাকিস্তানে ফল ও সবজির দাম আবারো আকাশে পৌঁছেছে। ১২ আগস্ট ঈদ উৎসবের কারণে পাকিস্তানের জনগণের সমস্যা বেড়েছে। পাকিস্তানের সাধারণ মানুষ বলছেন যে, ইমরান খানের উচিত ছিল ঈদের পরে অন্তত ভারতের সাথে বাণিজ্য সম্পর্ক বন্ধ করে দেওয়া।
ঈদের সময় মানুষজন চায় একটু হাতে টাকা পয়সা তথা অর্থ আসুক। কিন্তু পাকিস্তানে এখন উল্টো ঘটনা ঘটছে। মানুষজনের হাত থেকে টাকা পয়সা বেরিয়ে যাচ্ছে। সাধারণ ক্রেতা বাজারে যেতে পর্যন্ত ভয় পাচ্ছে মূল্যবৃদ্ধির কারণে। অন্যদিকে ভারতে রফতানি করার জন্য রাখা পণ্য গুদামে পচতে শুরু করেছে। এক কথায় স্থিতি খুবই ভয়াবহ হয়ে পড়েছে পাকিস্তানের জনতার। এত বড়ো উৎসব এমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে তা স্বপ্নেও ভাবেনি পাকিস্তানের সাধারণ জনতা।
পাকিস্তান সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের দরুন ভুগতে হচ্ছে দিন আনা দিন খাওয়া লোকজনদের। এমন কঠিন পরিস্থিতির সাথে লড়াই করে যাতে তারা ঈদ পালন করতে পারে তার জন্য আল্লার কাছে দোয়া চাইছেন। করাচি, লাহোর ও ইসলামাবাদের বাজার থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুসারে টমেটোর দাম আবারও প্রতি কেজি ৫০০ টাকার উপরে পৌঁছেছে। ১০০ টাকার কম দামের সবুজ শাকসব্জি নেই। একই অবস্থা ফলের ক্ষেত্রেও। শুধু তাই নয়, ঈদ উপলক্ষে পাকিস্তানে গার্হস্থ্য গ্যাস ও ডিজেলের দাম বৃদ্ধির কারণে বাজারে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে।
পাকিস্তানের লোকেরা বলছেন যে ইমরান খান রাজনীতিতে একজন অপরিপক্ক প্রধানমন্ত্রী। তিনি ট্রাম্প এবং মোদী দু’জনকেই সঠিকভাবে সামলাতে পারেননি। ফলস্বরূপ, কাশ্মীর ইস্যু হাতছাড়া হয়ে গেছে। একই সঙ্গে, কাশ্মীর সম্পর্কে ভারত সরকার গৃহীত বলিষ্ঠ সিদ্ধান্তের কারণে, পাকিস্তানের জনগণকে ভারতের পরিবর্তে লোকসান, অশান্তির শিকার হতে হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.