Header Ads

অসমের কার্বি-আংলংয়ে অস্ত্রশস্ত্র সহ গ্রেফতার ডিএনএলএ জঙ্গি

                                    
বিপ্লব দেব, হাফলংঃ ডিমাসা ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি (ডিএনএলএ) জঙ্গি সংগঠনের বিরুদ্ধে অভিযান তীব্রতর করে তুলেছে সেনা ও পুলিশ। ডিমা হাসাও এবং কার্বি-আংলং জেলায় সেনা পুলিশের যৌথ বাহিনী জোরদার অভিযান শুরু করেছে। 

 গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে সোমবার রাতে কার্বি-আংলং পুলিশ ও ১২ গাড়োয়াল রেজিম্যান্ট এক যৌথ অভিযান চালিয়ে কার্বি-আংলং জেলার ধনশিরি খেরাবাড়ি থেকে ডিমাসা ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মির কর্পরেল বেসটিং জিডুং ওরফে মাস্টার ওরফে জন ডিমাসা জিডুংকে গ্রেফতার করে। 


ধৃত জঙ্গি সদস্যের কাছ থেকে ১টি নাইন এম এম পিস্তল ১টি ম্যাগজিন ৩ রাউন্ড সজীব গুলি উদ্ধার যৌথবাহিনী। ধৃত বেসটিং জিডুং প্রথমে ইউপিএলএফ জঙ্গি সংগঠনের সদস্য ছিল। কার্বি-আংলং পুলিশ সুত্রে জানা গেছে বেসটিং ২০১৪ সালে ইউপিএলএফ জঙ্গি সংগঠনে যোগদিয়ে ২০১৬ সালে সে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করে। তারপর চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে আবার ডিএনএলএ জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেয় বেসটিং জিডুং। বর্তমানে জঙ্গি সংগঠনটির কর্পরেল ছিল বেসটিং এবং তার ব্যাজ নম্বর হচ্ছে ১৯৯১।

 পুলিশ জানিয়েছে বেসটিং জিডুং বর্তমানে ডিএনএলএ জঙ্গি সংগঠনে নতুন সদস্য ভর্তি করানো সহ জঙ্গলে নতুন ক্যাডারদের অস্ত্রের প্রশিক্ষণ দেবার কাজে নিযুক্ত ছিল। তাছাড়া এনএসসিএন(আইএম)-কে অস্ত্র সরবরাহ করত। এই বেসটিং জিডুং-র জন্য এনএসসিএন (আইএম)-র হেব্রন ক্যাম্পে ডিএনএলএ-র কিছু জঙ্গি নেতা আশ্রয় নিয়েছে বলে কার্বি-আংলং পুলিশ জানিয়েছে। গত লোকসভা নির্বাচনের আগে এই বেসটিং জিডুং ডিমাসাদের অধিকার আদায়ে এবং ডিমাসা জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা ও কৃষ্টি সংস্কৃতি পরিচয় বাঁচিয়ে রাখতেই ডিমাসা ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি আত্মপ্রকাশ করে বলে ভিডিও প্রকাশ করেছিল। ওই ভিডিও প্রকাশের পরই বেসটিং জিডুং-য়ের খোঁজে ছিল সেনা ও পুলিশ অবশেষে সোমবার রাতে ধনশিরি খেরাবাড়ি থেকে বেসটিংকে গ্রেফতার করে সেনা ও পুলিশের যৌথবাহিনী।

No comments

Powered by Blogger.