Header Ads

এন আর সি তালিকা ৩১ আগস্টেই, প্রতীক হাজেলা আগুন নিয়ে খেলছেন, নোমল মোমিন, নেতাজির সঙ্গী স্বাধীনতা সাংগ্রামীর নাম বাদ অভিযোগ শিলাদিত্য দেবের

 নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ 
 
অসম সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকারের আবেদন ও হলফনামার প্রতি মুখ ফিরিয়ে মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্ট চূড়ান্ত রায় দিয়ে জানিয়ে দিল পূর্বের সিদ্ধান্ত মতো ৩১ আগস্ট এনআরসি তালিকা প্রকাশ পাবে। এই রায়ে অসমের লাখ লাখ ভূমিপুত্র এবং খিলাঞ্জিয়া অসমিয়া মানুষের নাম বাদ পড়বে এই  আশঙ্কা ব্যাক্ত করে বিজেপি মুখপাত্র ডাঃ নুমল মোমিন সুপ্রিমকোর্টের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, সব  গণ্ডগোলের মূলে আছেন এনআরসি সমন্বয়ক প্রতীক হাজেলা, তিনি অসমের মানুষের ভাবাবেগকে গুরুত্ব না দিয়ে আগুন নিয়ে খেলছেন। বোকাজানএর বিজেপি বিধায়ক ডাঃ মোমিন বারবার সুপ্রিমকোর্টের রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেন, গণতন্ত্রে জনগনের স্বার্থ আগে, জনগণকে বিপদে ফেলে কোনও রায় হতে পারে না।


 ৩১ আগস্ট প্রকাশিত এনআরসি তালিকায় রাজ্যের ভূমিপুত্র,  খিলাঞ্জিয়া, উপজাতি গোষ্ঠীর নাম বাদ পড়লে তালিকা  সংশোধন করে ভারতের নাগরিক ভূমিপুত্র  অসমিয়াদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হবে। তা কি সম্ভব? এই প্রশ্নের জবাবে  তিনি বলেন, মানুষ আগে,  গণতন্ত্র আগে, মানুষের স্বার্থ্য পরিপন্থী কোনও কাজ বিজেপি করবে না। বলেন তিন তিন বার  আবেদন করার পরেও সুপ্রিমকোর্ট মানলেন না। অসমের সেন্টিমেন্টকে, উপজাতি মানুষের স্বার্থ্য কে পাত্তাই দিলেন না প্রতীক হাজেলা, তিনি অসমে আগুন জ্বালাতে চাইছেন, বিজেপি তা হতে দেবে না। তিনি বলেন, ৩১ আগস্ট এন আর সি তালিকা প্রকাশের পর  অসমের আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থার অবনতি ঘটবে। এর দায়িত্ব কে নেবে বলে প্রশ্ন করেন ডাঃ মোমিন। 

বিজেপির বিধায়ক শিলাদিত্য দেব এন আর সি ফ্লপ করবে,বলে মন্তব্য করে এনআরসি সমন্বয়ক প্রতীক হাজেলার কড়া সমালোচনা করে বলেন  তার একনায়কতন্ত্র চলবে না। এনআরসি তালিকায় লাখ লাখ বাংলাদেশি মুসলিমের নাম ঢুকে গেছে,  লাখ লাখ হিন্দু বাঙালির নাম বাদ পড়বে বলে অভিযোগ করেন। নেপালি সম্প্রদায়ের স্বাধীনতা  সংগ্রামী পূরণ বাহাদুর ছেত্রীর নাম তার পত্নীর নাম এনআরসি তালিকা থেকে বাদ পড়েছে। পূরণ বাহাদুর নেতাজির আজাদ হিন্দ বাহিনীর একজন সেনা ছিলেন, রেগুনে জেল খেটেছিলেন। তার  বিধবা পত্নী আজও কোনও সরকারি সুবিধা পান নি। এনআরসিতে নাম নেই, আজ ভুটান সীমান্তে তামূলপুরে কোনও রকমে দিনযাপন করছেন। শিলাদিত্য সেখানে গিয়ে সেই স্বাধীনতা সংগ্রামীর পরিবারের দুঃখ যন্ত্রণার কথা জেনে এসে বলেন, একজন স্বাধীনতা সাংগ্রামীর যদি এনআরসি  তালিকায় নাম না থাকে সেই তালিকা কি শুদ্ধ হবে। তার অভিযোগ লাখ লাখ ভুলে ভরা তালিকা প্রকাশ পাবে, তা অসমের মানুষের কোনও লাভ হবে না।
 

No comments

Powered by Blogger.