Header Ads

কেন্দ্রীয় সরকার দেশের ২৫৬ জেলার জল সংকটের কথা বলে, ২০২৪ য়ে প্রতি ঘরে জল সরবরাহের প্রতিশ্ৰুতি কি কোনও দিন পূরণ হবে?

অমল গুপ্ত


জল প্রাণবায়ু, জলের অপর নাম জীবন। সেই জল ভাবনা শুরু হয়ে গেছে গোট দেশ জুড়ে, বিশ্ব জুড়ে। কিন্তু বড্ড দেরি হয়ে গেছে। জল সংকট যে ভাবে বেড়ে চলছে, তার সুরাহার কোনও লক্ষন দেখা যাচ্ছে না। আজ ৫ জুলাই অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন তাঁর বাজেট ভাষণে দেশে জল সমস্যা সমাধানে জল জীবন মিশন এর কথা বলেছেন। দেশের ২৫৬ টি জেলার ১৫৯২ টি ব্লকে জল সংকটের কথা বলে ২০২৪ সালের মধ্যে প্রতি ঘরে পাইপের মাধ্যমে বিশুদ্ধ জল সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জল সংরক্ষণের ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি  প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারবেন কিনা সন্দেহ আছে। 
ছবি, সৌঃ আন্তৰ্জাল
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কয়েকদিন আগে ‘মন কি বাত’ শীর্ষক রেডিও ভাষণে জল সংরক্ষণের ওপর জোর দিয়ে বলেছেন দেশে মাত্র 8 শতাংশ জল সংরক্ষণ হচ্ছে। বিশ্বের ৯৭.৫ শাতাংশ জল লবনাক্ত, পানের অনুপযুক্ত, হিমবাহের বরফ গলা জল, ভূগর্ভস্থ জল এবং নদনদীর জল মিষ্টি জল যা পান করা যেতে পারে। তবে ভূগর্ভস্থ জলে আর্সেনিকের মত বিষ আছে। অসমের নগাঁও, কার্বিআংলং প্রভৃতি জেলাতে মাটির নিচের জলে আর্সেনিক আছে। হাজার হাজার মানুষ পঙ্গু হয়ে গেছে। অসমের  সবচেয়ে অবহেলিত বিভাগ জন স্বাস্থ্য বিভাগ, এই বিভাগে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি, বিগত ১৫ বছরের কংগ্রেস আমলে হাজার কোটির দুর্নীতির খবর কেউ রাখে না। 

বর্তমান বিজেপি সরকারের জল সরবরাহ প্রকল্প গুলোও মুখ থুবড়ে পড়েছে। গুয়াহাটির মতো তথাকথিত স্মার্ট সিটিতেও সবাই পাইপের জল পায় না। গ্রামের অবস্থা যে কি করুন তা সহজেই অনুমান করা যায়। কোটি কোটি টাকা ব্যয় করেও দেশের তথাকথিত পবিত্র নদী গঙ্গাকে দূষণ মুক্ত করা গেল না। অসমে বিশাল নদ ব্রহ্মপুত্র বরাক নদী সহ ৪৪টি ভয়ঙ্কর দূষণের কবলে পড়েছে বলে সংসদে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর জানিয়েছেন। দেশের ৫৩ টি নদনদী দূষনের কবলে পড়েছে। 

গঙ্গা সহ সব নদীর জল দূষিত। এরপর কি প্রতি ঘরে বিশুদ্ধ জল সারবরাহ সম্ভব হবে? কেন্দ্রীয় নীতি আয়োগের জল নিয়ে যে প্রতিবেদন পেশ করেছে তাতে উদ্বেগ বেড়েই চলেছে। ২০২০ সালে দেশের প্রধান শহর বেঙ্গালুরু, দিল্লি, হায়দ্রাবাদ এবং চেন্নাই সহ কয়েকটি শহরের ভূগর্ভস্থের জল শুকিয়ে যাবে। ২০৩০ সালের মধ্যে দেশের ৪০ শাতাংশ মানুষ জলের জন্যে ভুগবে। দেশের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ দেশের জল সংকট সম্পর্কে দেশবাসীকে সর্তক করে দিয়ে জল সংরক্ষণ করার জন্যে কাতর আবেদন জানিয়েছেন। দেশে ব্যাপক হারে জঙ্গল পরিবেশ প্রকৃতি ধ্বংস হচ্ছে। 

তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে।  বিজেপি, কংগ্রেস সহ দেশের কোনও রাজনৈতিক দল বিগত নির্বাচনে দলীয় ইস্তাহারে জল ও পরিবেশ রক্ষায় গুরুত্ব দেয় নি। দেশের জীবন রেখা গঙ্গা ব্রহ্মপুত্রের ভয়ানক দূষণের কথা  বেমালুম ভুলে গেছে। সামনে ভয়ঙ্কর দুর্দিন আসবে, আমরা আজও পরিবেশ জল সংরক্ষণ নিয়ে মোটেই চিন্তিত নই, বিশ্ব ব্যাংকের এক কর্তা কবেই বলে গেছেন আগামী তৃতীয় বিশ্ব যুদ্ধ হবে জল নিয়ে। 

No comments

Powered by Blogger.