Header Ads

প্ৰাক্তন আইপিএস অফিসার সঞ্জীব ভাটের যাবজ্জীবন

ছবি, সৌঃ আন্তর্জাল
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, জামনগরঃ গুজরাত দাঙ্গায় তখনকার মুখ্যমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদির ভূমিকা নিয়ে প্ৰশ্ন তুলেছিলেন আইপিএস অফিসার সঞ্জীব ভাট। ৩০ বছর পুরনো একটি মামলায় সেই আইপিএস অফিসারকে যাবজ্জীবন সাজা শোনাল অন্য আদালত। জামনগর থানায় পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন এক বন্দির মৃত্যুতে সঞ্জীব ভাটের বিরুদ্ধে খুনের মামলা চলছিল। সেই মামলায় তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে বৃহস্পতিবার কারাদণ্ড দিল আদালত। আরও একজন প্ৰাক্তন আইপিএস অফিসার প্ৰবীণসিন জালাকেও একই সাজা শুনিয়েছে আদালত। আরও ৬ জন পুলিশ অফিসারকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে তাঁদের সাজার পরিমাণ জানা যায়নি। 
১৯৯০ সালে গুজরাতের জামনগরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসাবে ছিলেন সঞ্জীব ভাট। সেসময় লালকৃষ্ণ আডবাণী এবং তার সমৰ্থকদের রথযাত্ৰাকে নিয়ে জামজোধপুর এলাকায় সাম্প্ৰদায়িক দাঙ্গা বাধেছিল। সেই ঘটনায় ১৫০ জনকে আটক করেছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সঞ্জীব ভাট। তাঁদের মধ্যে প্ৰভুদাস বৈষ্ণবী নামে এক ব্যক্তিও ছিলেন। ছাড়া পাওয়ার পর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। পুলিশি নিৰ্যাতনে প্ৰভুদাসের মৃত্যু হয়েছে বলে সেসময় দাবি করেছে তাঁর পরিবার। এনিয়ে থানায় মামলাও দায়ের করেন প্ৰভুদাসের ভাই। তাতে সঞ্জীব ভাট ও আরও বেশ কয়েকজন পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে নিৰ্যাতনের অভিযোগ তোলেন তিনি। বৰ্তমানে ১৯৮৮ ব্যাচের আইপিএস অফিসার সঞ্জীব ভাট বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রয়েছেন।    

No comments

Powered by Blogger.