Header Ads

বরাকের পশ্চিম কাটিগড়ায় বাংলাদেশে পাচারের পথে মহিষ বোঝাই লরি আটক

  নয়া ঠাহর প্রতিবেদন,বদরপুর: আজ থেকে এক সপ্তাহের মধ্যে দু বার মহিষ বোঝাই লরি আটকা পড়ায় পশ্চিম কাটিগড়া এলাকায় চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। মহিষগুলি বাংলাদেশে পাচারের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ। জানা গেছে, পাইকান দিগরখাল জিপির আঞ্চলিক পঞ্চায়েত সদস্য গৌতম বৈষ্ণব সোমবার রাতে গুমড়া থেকে ফিরছিলেন। রাত ১১টায় পাইকান পৌঁছানোর পর তিনি দেখতে পান, এএস১১ডিসি ৯৯১২ নম্বরের একটি লরি মেঘালয় অভিমুখে দাঁড়িয়ে আছে। তিনি এতে কি আছে জিজ্ঞাসা করতেই চালক ও সহ চালক পালিয়ে যায়। তখন গৌতম বৈষ্ণব সঙ্গে সঙ্গে গুমড়া পুলিশে খবর দেন। কিছুক্ষণের মধ্যে গুমড়া পুলিশের ইনচার্জ রাজীব বর্মণ দল নিয়ে ঘটনাস্থল পাইকানে আসেন। লরিতে তল্লাশি চালালে দেখা যায় ১১ টি মহিষ রয়েছে। পুলিশ লরি সহ মহিষগুলি নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যায়। উল্লেখ্য যে, দিগরখালের জনগণের প্রচেষ্টায় গত মঙ্গলবার অর্থাৎ ২১ মে রাত আটটা নাগাদ এএস ১১বিসি ৬৮১১ নম্বরের লরি থেকে ১২টি মহিষ আটক করা হয়েছিল। পরে লরি সহ মহিষগুলি গুমড়া পুলিশের কাছে সমঝে দেন তারা। স্থানীয় জনগণ অভিযোগ করেন, বরাক থেকে গরু মহিষ নিয়ে মেঘালয় হয়ে বাংলাদেশে পাচার করা হচ্ছে। প্রায় প্রতি রাতেই ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে বরাকের গরু মহিষ পাচার করা হচ্ছে। ওই সড়ককে গরু মহিষ পাচারের সেফ জোন হিসাবে ব্যবহার করছে সমাজ বিরোধীরা। প্রশাসন এবিষয়ে জেনেশুনে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ স্থানীয় জনগণের।

No comments

Powered by Blogger.