Header Ads

বরাকের হাইলাকান্দিতে শেষ লগ্নের প্ৰচার চালালেন মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল





নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, পাঁচগ্রামঃ বরাক উপত্যকার দুটি আসনকে পাখির চোখ করে মাঠ ছাড়তে নারাজ রাজ্যের প্রভাবশালী প্রচারকদের। প্রচারের প্রায় অন্তিমলগ্নে উত্তর হাইলাকান্দির তথা উপত্যকার মাঝঅংশ কাটাখাল জানকীচরণ হাইস্কুল সংলগ্ন খেলার মাঠে আয়োজিত বিজেপির নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। সভায়  বিভিন্ন রকমের প্রতিশ্রুতিমূলক ভাষণ দেওয়ার পাশাপাশি দেশের ঐক্যবদ্ধতা ও স্বার্থ সুরক্ষার জন্য এমনকি কুশাসনমুক্ত তথা দুর্নীতিমুক্ত স্বচ্ছ ভারত গঠনের লক্ষে বিজেপিকে জয়ী করার আহ্বান জানান। সভায় কমকরেও প্রায় দশহাজারের অধিক জনতার ভিড় পরিলক্ষিত হয়। উক্ত সভায় কংগ্রেস দুর্নীতিভাজ ও অপশাসনযুক্ত বরাক-ব্রক্ষ্মপুত্রের বৈষম্যতার কারিগর বলে কটাক্ষ করে একহাত নেন। তবে মুখ্যমন্ত্রী সনোয়ালের প্রতিশ্রুতিমূলক ভাষণ তথা ভোটারদের আকর্ষণমূলক ভাষণে স্থান হয়নি অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও একমাত্র শিল্প কাছাড় কাগজ কলের পুনরুজ্জীবন। এদিকে উক্ত সভায় কাগজকলের সঙ্গে যুক্ত অধিকাংশ কর্মীরা ও মুখ্যমন্ত্রী  সনোয়ালের বক্তব্যে আশার আলোর অপেক্ষায় উপস্থিত থেকে ও নিরাশায় ফিরতে হল। পরিশেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ও কংগ্রেসকে এক হাত নিয়ে বিজেপির কেন্দ্রে পুনার্গমন দাবি করে কাগজকল নিয়ে প্রশ্ন করলে মুখ্যমন্ত্রী সনোয়াল সাংবাদিকদের এড়িয়ে যান। মুখ খুলতে নারাজ মুখ্যমন্ত্রী সনোয়ালের এ ভূমিকায় যে আর মাত্র তিনদিন বাকি লোকসভার দ্বিতীয় পর্বের নির্বাচনে মাঠ চষে কালোঘাম ঝড়ালে ও যে করিমগঞ্জ ১নং লোকসভায় কতটুকু সাফলতা জুটবে এনিয়ে সন্দিহান রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
এদিকে হেলিকপ্টার নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী সনোয়ালের অবতরণের পূর্বেই ইন্দ্রদেবের আশীর্বাদে পরিষ্কার আকাশের নিচেই নিরাপত্তার কড়া বেষ্টনীতে সম্পন্ন হয় শেষলগ্নের নির্বাচনী জনসভা। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন জেলা বিজেপির সভাপতি সুব্রত নাথ,সহ সভাপিত জওর নাথ, অন্যতম কর্মী সঞ্জয় দে,ইলিয়াছ উদ্দিন লস্কর, স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রতিনিধিদের মধ্যে সুরজ সেন, ভুল্টি দাস, অপরাজিতা সরকার সহ জেলাস্থরের সকল কর্মীরা ।

No comments

Powered by Blogger.