Header Ads

মমতা দিদি ধুবড়িকে পাখির চোখ করে প্ৰচারাভিযানে আসবেন, জিতবেনওঃ গোপীনাথ দাস


যে সব কেন্দ্ৰে তৃণমূল কংগ্ৰেসের প্ৰাৰ্থী থাকবেনা সেই সব কেন্দ্ৰে তৃণমূল বিজেপির বিরুদ্ধে প্ৰচারাভিযান চালাবে


অমল গুপ্তঃ গুয়াহাটি,
নিম্ন অসমের ধুবড়ি লোকসভা কেন্দ্ৰে ধৰ্মীয় সংখ্যালঘু মুসলিম জনগোষ্ঠী ভোটার হচ্ছে ৬০ শতাংশের বেশি। এই কেন্দ্ৰের দিকে পশ্চিমবঙ্গের দিদির বিশেষ দৃষ্টি পড়েছে। এআইইউডিএফ প্ৰধান বদরুদ্দিন আজমলের এই কেন্দ্ৰে তৃণমূল কংগ্ৰেস এক বিশিষ্ট আইনজীৱী নুরুল ইসলাম চৌধুরীকে প্ৰাৰ্থীত্ব দিচ্ছে। তৃণমূলের সৰ্বভারতীয় নেত্ৰী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্ৰী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধুবড়িকেই পাখির চোখ করে নিৰ্বাচনী প্ৰচারাভিযানে আসবেন এবং জিতবেনও। উত্তর পূৰ্বাঞ্চল বার কাউন্সিলের ভাইস পেসিডেণ্ট তথা আসাম উকিল সংস্থার প্ৰাক্তন সভাপতি নুরুল ইসলাম চৌধুরীর জেতার সম্ভাবনা ১০০ শতাংশ বলে দাবি করলেন তৃণমূল কংগ্ৰেসের রাজ্য সভাপতি গোপীনাথ দাস। তিনি আজ এই প্ৰতিবেদককে জানান, তৃণমূল কংগ্ৰেস রাজ্যে ১৩ টি আসন দিদির কাছে দাবি করেছিল, আপাতত ৬ টি মঞ্জুর করেছে। শিলচর থেকে হিতব্ৰত রায়, করিমগঞ্জ থেকে চন্দন দাস, বরপেটা থেকে এসহাক আলী দেওয়ান, গুয়াহাটি থেকে মনোজ কুমার শৰ্মা এবং কোকরাঝাড় থেকে কমলা কান্ত দৈমারি প্ৰতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তৃণমূল রাজ্য সভাপতি বলেন, দিদি বরাক উপত্যকায় দুটি এবং ব্ৰহ্মপুত্ৰ উপত্যকায় একটি লোকসভা কেন্দ্ৰে প্ৰচারাভিযান চালাতে আসবেন। তাছাড়া পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্ৰী ফিরহাদ হাকিম সহ বেশ কয়েকজন নেতারা আসবেন। প্ৰাক্তন বিধায়ক তথা তৃণমূল কংগ্ৰেসের সভাপতি দাস জানান, যে সব কেন্দ্ৰে তৃণমূল কংগ্ৰেস প্ৰাৰ্থী পদ দেবে না, সেই সব কেন্দ্ৰে তৃণমূল কংগ্ৰেস প্ৰধান শত্ৰু বিজেপির বিরুদ্ধে প্ৰচারাভিযান চালাবে। অসমের ৬ টি কেন্দ্ৰেই ধৰ্মীয় সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর মুসলিম ভোটাররা ছাড়াও বাঙালি হিন্দুরা ব্যাপক হারে তৃণমূল কংগ্ৰেসকে সমৰ্থন করবে তা প্ৰায় সুনিশ্চিত। 
তৃণমূল কংগ্ৰেস এবং মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্ৰী কৰ্ণাড সাংমার ন্যাশনাল পি'পলস পাৰ্টী (এন পি পি)ও রাজ্যের ধৰ্মীয় সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ব্যাপক সমৰ্থন পাবে। সে কথা ভেবে এআইইউডিএফ এখন থেকেই চিন্তায় পরে গেছে। এআইইউডিএফ প্ৰধান বদরুদ্দিন আজমল এন পি পি-র প্ৰতি আঙুল তুলে বলেছেন, এন পি পি এআইইউডিএফ-র ভোট কাটবে। এন পি পি রাজ্যের লোকসভার ১৪ টি আসনে প্ৰাৰ্থী দিচ্ছে। দলের প্ৰধান কৰ্ণাড সাংমা গুয়াহাটিতে দলীয় কাৰ্যালয় উদ্বোধন করে বলেন, অসম তথা উত্তর পূৰ্বাঞ্চলের বিভিন্ন সমস্যা দিল্লীর দরবারে তুলে ধরার লক্ষ্যে এই অঞ্চলের সব আঞ্চলিক দলগুলির সঙ্গে বন্ধুত্বপূৰ্ণ সম্পৰ্ক তৈরি করে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করবে। 

No comments

Powered by Blogger.