Header Ads

মহিলা ভোটার বাড়াতে নিৰ্বাচন কমিশনের তৎপরতা

সাংবাদিক সম্মেলনে ইলেকশন অফিসার মুকেশ সহায়, পাশে নোডাল অফিসার পঙ্কজ চক্ৰবৰ্তী।
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ রাজ্যের মুখ্য নিৰ্বাচনী অফিসার মুকেশ সহায় এর আগে বলেছিলেন এনআরসিতে নাম না থাকলেও ভোটার লিস্টে নাম থাকলেই তারা ভোটাধিকার পাবেন। কিন্তু শুক্ৰবার সাংবাদিক সম্মেলনে মুকেশ সহায় কিছু সৰ্ত্তের কথা জানালেন। তিনি বলেন- ডি ভোটারদের মামলা গুলি বিদেশী সনাক্তকরণ ট্ৰাইবুনালে নিষ্পত্তি হলেই তা প্ৰামাণ সাপেক্ষে ভোট দানের অধিকার পাবে। তাই সব ভোটাররাই যে ভোট দানের অধিকার পাবেন তার মধ্যে কোনও সত্যতা নেই। তিনি এদিন বলেন- রাজ্যে ১ লক্ষ ২০ হাজার ডি ভোটার আছে। তার মধ্যে গত নিৰ্বাচনের সময় ডি বোটারের সংখ্যা ৫ হাজার কম ছিল। রাজ্যে সৰ্বমোট ভোটারএর সংখ্যা হচ্ছে ২ কোটি ১৭ লক্ষ ৬ হাজার। তার মধ্যে ৫০ শতাংশ মহিলা। এদিন আন্তৰ্জাতিক মহিলা দিবস উপলক্ষে তিনি মহিলাদের সামিল করে বেশ কয়েকটি কৰ্মসূচির কথা জানান। প্ৰথম কৰ্মসূচি হচ্ছে দিদিমার ছড়া (আইদেউর) ছড়া। এই কৰ্মসূচি অনুযায়ী রাজ্যের অসম স্টেট রুরাল লাইভলিহুড মিশন এবং অসম স্টেট আৰ্বান লাইভলিহুড মিশন এই দুই সহযোগিতা নিয়ে আত্মসহায়ক গ্ৰুপগুলিকে পাশে নিয়ে রাজ্যের ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির চেষ্টা করা হচ্ছে। দ্বিতীয়ত, ‘সারথি’ নামের এক কৰ্মসূচির কথা বলেন। রাজ্যে ২৭ হাজার গ্ৰাম পঞ্চায়েত আছে। প্ৰতিটি গ্ৰামে মহিলাদের জন্য হেল্প ডেস্ক স্থাপন করা হয়েছে। এই হেল্প ডেস্কের নম্বর থাকবে ১৯৫০। এই নম্বরে ফোন করে মহিলারা নিৰ্বাচন সংক্ৰান্ত বিভিন্ন প্ৰশ্নের সমাধাআন পেয়ে যাবেন। তাদের ভোটার লিস্টে নাম আছে কি না? ইভিএম-এর কাৰ্যকারিতা সব তথ্য পেয়ে যাবেন। আইদেউর হাতপুথিতে ভোটারদের বিভিন্ন তথ্য দেওয়া থাকবে। চন্দ্ৰপ্ৰভা নামে এক ক্ৰমসূচি থাকবে নিৰ্বাচনে যারা যোগ দেবেন তাদের সচেতনতা করে তোলা হবে। প্ৰত্যেকটি পোলিং স্টেশনে মহিলা ভোটারদের নিয়ে সভাসমিতি, র‍্যালি বিভিন্ন কৰ্মসূচি হাতে নেওয়া হবে। বিশেষ করে যে সব জায়গায় মহিলা ভোটার কম সে সব জায়গায় এই কৰ্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। একজন করে ভিলেজ অ্যাম্বাসেডর নিয়োগ করা হবে। পঙ্কজ চক্ৰবৰ্তী নামে একজনকে নোডাল অফিসার হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। তিনিও বিস্তৃতভাবে সাংবাদিকদের কৰ্মসূচির কথা জানান। নিৰ্বাচনে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের আইকন মনোনিত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে হিমা দাস, পূৰ্ণিমা বৰ্মণ, কপিল বরা, গোলাপ রাভা, প্ৰমুখদের মাধ্যমে ভোটারদের সচেতনতা করা হবে। ১৭ মাৰ্চ প্ৰতিটি জেলায় নতুন ভোটারদের নিয়ে কুইজ প্ৰতিযোগিতা ইত্যাদি কৰ্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। ২৪ মাৰ্চ গুয়াহাটিতে রাজ্য পৰ্যায়ের কুইজ প্ৰতিযোগিতা হবে। রাজ্যের স্পৰ্শকাতর অঞ্চলগুলিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্যে কাজ শুরু হয়েছে। রেলওয়ে স্টেশন বিমানবন্দর প্ৰভৃতি গুরুত্বপূৰ্ণ জায়গাগুলিতে নজরদারি চালানো হচ্ছে। রাজ্যের বেআইনী অস্ত্ৰশস্ত্ৰ মজুতদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। অতিরিক্ত টাকা লেনদেনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। কেন্দ্ৰীয় স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক, ডিজিপি রাজ্যের মুখ্য সচিবদের নিয়ে আইনশৃঙ্খলা জনিত পরিস্থিতি নিয়ে ইতিমধ্যেই উচ্চ পৰ্যায়ের বৈঠক হয়েছে। রাজ্যে অতিরিক্ত বাহিনী আনা হবে। ভোটার তালিকার নাম সংশোধনের কাজ এখনও চলছে। ভোটার তালিকায় যে কোউ নাম এখনও তুলতে পারেন। গত নিৰ্বাচনে যে সব অঞ্চলে কম ভোট পড়েছে সেসব অঞ্চলে নতুন করে ভোটারদের সচেতনতা করতে চেষ্টা করা হচ্ছে। 

No comments

Powered by Blogger.