Header Ads

পাকিস্তানের থেকে যে কোনওরকম প্ররোচনার জবাব দিতে পুরোপুরি প্রস্তুত ছিল ৩ সেনাবাহিনী

ছবি, সৌঃ এএনআই
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, নয়াদিল্লিঃ পুলওয়ামা হানার পর এই প্ৰথম সংবাদ মাধমে যৌথ বিবৃতি দিলেন তিন সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনী, নৌসেনা এবং বায়ুসেনার তরফে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যৌথ বিবৃতি দিয়ে বলা হল, পাকিস্তানের থেকে যে কোনওরকম প্ররোচনার জবাব দিতে পুরোপুরি প্রস্তুত ছিল তারা। মেজর জেনারেল সুরেন্দ্র সিং মহল বলেন, “আমাদের সেনাবাহিনীকে টার্গেট করেছে পাকিস্তান। তারা উত্তেজনা তৈরি করেছে। তারা যদি আমাদের আরও প্ররোচনা দেয়, আমরা চরম প্রত্যাঘাতের জন্য তৈরি”। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, শান্তির বার্তা হিসেবে অভিনন্দন বার্তমানকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করার পর বিকেল ৫ টা থেকে ২ ঘন্টা পিছিয়ে যায় বিবৃতি। মেজর জেনারেল সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বুধবার জম্মু কাশ্মীরের একটি ব্রিগেড হেডকোয়ার্টার, একটি ব্যাটেলিয়ন হেডকোয়ার্টার এবং একটি লজিসটিক্স ইনস্টলেশনকে টার্গেট করেছিল পাকিস্তান। শুক্ৰবার ছাড়া হবে ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটকে, পাক-সংসদে জানিয়েছেন ইমরান। বিষয়টিকে তিনি একটি সদিচ্ছার পদক্ষেপ হিসাবে দেখছেন কিনা, তার জবাবে এয়ার ভাইস মার্শাল আরজিকে কাপুর বলেন, “জেনিভা সম্মেলনের চুক্তি মাথায় রেখেই করা হয়েছে”। এয়ার ভাইস মার্শাল আরজিকে কাপুর বলেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধকে উৎসাহ দেওয়ার প্রমাণ রয়েছে। তিনি বলেন, “পাকিস্তানের রয়েছে F-16, এবং  JF-17 এবং সম্ভবত মিরাজ”। মিশাইলের অংশ প্রমাণ হিসাবে সংবাদমাধ্যমে দেখানো হয়েছে। তার আগে বুধবার তিন সেনা বাহিনীর প্ৰধান প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদির বাসভবনে বৈঠক করেছেন।



No comments

Powered by Blogger.