Header Ads

ধনতেরস উৎসবে লক্ষ্মীকে ঘরে আনতে মহানগরের জুয়েলারিগুলিতে গ্রাহকদের ভিড়


 ছবি, সৌঃ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস
দেবযানী পাটিকর, গুয়াহাটিঃ ধনতেরস, কালীপুজো এবং দেওয়ালি, আর কদিন বাদে বিয়ের সিজন এইসব কিছু  ঘিরে বৰ্তমানে চারদিকে জমজমাট পরিবেশ। তবে উৎসবকে ঘিরে সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই নিজের ব্যবসা কেন্দ্ৰকে সাজিয়ে গুছিয়ে নিয়ে বসেছেন ছোটবড় সব ধরনের ব্যবসায়ীরা। সোমবার ধনতেরস উপলক্ষে গোটা দেশের সঙ্গে সঙ্গে মহানগরের বিভিন্ন জুয়েলারি শপ থেকে শুরু করে স্টিলের বাসন পত্ৰ, মাটির বাসন পত্ৰ, টিভি, ওয়াশিং মেশিন, রেফ্ৰিজেরেটর, ক্যামেরা, ওভেনের শোরুম সৰ্বত্ৰই গ্ৰাহকদের ভিড় দেখা গেছে। ধনতেরস উপলক্ষে সোমবার সোনার দাম গত ৬ বছরের তুলনায় সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। এদিন প্ৰতি ১০ গ্ৰাম সোনার দাম ৪০ টাকা বেড়ে ৩২৬৯০ টাকা হয়েছে। পশ্চিম এবং উত্তর ভারতে খুব ধুমধামের সঙ্গে ধনতেরস উৎসব পালিত হয়। তবে বৰ্তমানে এই উৎসব বিভিন্ন ধৰ্মাবলম্বীর মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। সংবাদ মাধ্যম, বিভিন্ন জায়গায় ব্যানার, হোৰ্ডিং দিয়ে  বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এই উৎসবকে ঘিরে ব্যবসায়ীরাও মুনাফা লাভের স্বাৰ্থে রীতিমতো প্ৰতিযোগিতায় নেমেছেন। তাই এদিন মহানগরের বড় বড় জুয়েলারি শোরুমগুলিতে দেখা গেছে প্রচুর ভিড় । বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন এবং হালকা থেকে ভারী ডিজাইনের গয়না সমস্ত কিছুই তৈরি করেছেন সুদক্ষ কারিগররা। অনেকেই জানালেন যে আগের থেকে সোনার চাহিদা অনেক বেশি বেড়েছে। এই চাহিদা ক্ৰমশ বাড়বে। এছাড়াও  কিছু কিছু জুয়েলারি শোরুমে উৎসবের বিশেষ ছাড় দেওয়া হচ্ছে সোনার গয়নায়। ধনতেরসের দিন সাধারণত সোনা রূপো কেনার রীতি। দেওয়ালির আগে হয় ধনতেরস। লোকের বিশ্বাস, দেবী লক্ষ্মী এ দিনে  ভক্তদের গৃহে যান ও তাঁর ইচ্ছে পূরণ করেন। ব্যবসায়ীদের কাছে এই দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এদিন সম্পদের দেবতা কুবেরের পূজা করা হয়। পরিবারের সম্বৃদ্ধি সকলেই চান। তাই এদিন নিজের সাধ্যমতো সকলেই গয়নাগাটি কেনাকাটা করেন।

No comments

Powered by Blogger.