Header Ads

ডক্টর্স ডে-তে করোনা-যোদ্ধাদের কুর্নিশ ! ছুটি ঘোষণা করেই জাতীয় ছুটি দাবি মমতার !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়
পয়লা জুলাই ডক্টর্স ডে-তে ছুটি ঘোষণা করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তিনি এই ডক্টর্স ডে-কে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণা করার অনুরোধ জানান কেন্দ্রীয় সরকার ও অন্যান্য রাজ্য সরকারকে। করোনা মোকাবিলায় নিজেদের জীবন ও পরিবারকে তুচ্ছ করে লক্ষ লক্ষ ডাক্তার, পেশাদার চিকিৎসক, প্যারামেডিক্যাল স্টাফ-সহ সমস্ত ফ্রন্টলাইনার যোদ্ধাদের সম্মানের প্রতীক হিসাবে জাতীয় ছুটির তালিকাভুক্ত করার প্রস্তাব দেন।

মমতা বলেন, এই করোনা পরিস্থিতিতে লক্ষ লক্ষ ডাক্তার, পেশাদার চিকিৎসক, প্যারামেডিক্যাল স্টাফ-সহ সমস্ত ফ্রন্টলাইনাররা নিজের ও নিজের পরিবারের নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্যের চেয়েও মানুষকে আরও যত্ন দিয়েছেন। আমরা প্রতিদিন তাদের সাহসকে ধন্যবাদ জানাই। এদিন তাঁদের সম্মানে ছুটি ঘোষণা করা হল ডক্টর্স ডে-তে। একইসঙ্গে জাতীয় ছুটির প্রস্তাবও রাখা হল কেন্দ্রের কাছে।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা যোদ্ধাদের আত্মত্যাগের পক্ষে এটি 'সবচেয়ে উপযুক্ত শ্রদ্ধাঞ্জলি'। অন্যান্য রাজ্যগুলিকেও এটি অনুসরণ করা উচিত। দেশব্যাপী চিকিৎসকদের সম্মান জানিয়ে ১ জুলাইকে জাতীয় ছুটি করার বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে অনুরোধও করেছেন। জনগণের জন্য এই মহামারী যুদ্ধের সময় যাঁরা প্রাণ হারিয়েছেন তাদের আত্মত্যাগকেও স্বীকার করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।
এদিন রাজ্যের তরফে একটি নতুন সমবায় ক্লাব গঠন করা হয়েছে, যা কোভিড থেকে বেঁচে যাওয়া লোকদের নিয়ে গঠিত। এই রাজ্যে অন্যান্য আক্রান্তদের জন্য তাঁরা অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেবেন এবং তাঁদের লড়াইয়ের মনোভাব প্রদান করতে সহায়তা করবেন। মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে গঠিত প্রথম ক্লাবে এখন পর্যন্ত ৬০ জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
করোনাকে হারিয়ে জয়ী হওয়া ব্যক্তিদের নিজ নিজ জেলায় 'কোভিড ওয়ারিয়র' ক্লাবের সদস্য হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। রাজ্য সরকার অবশ্য স্পষ্ট করেনি যে, করোনাকে হারিয়ে জয়ী ব্যক্তিরা প্লাজমা থেরাপির জন্য অনুপ্রাণিত হবেন কি না।
এদিকে, পশ্চিমবঙ্গ সরকার ফোনে চিকিৎসা সহায়তার জন্য প্রয়োজনীয় টেলি মেডিসিন পরিষেবা শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
১ জুলাই থেকে এই পরিষেবা মিলবে, যাতে সামাজিক দূরত্ব আরও বজায় রাখা যায় এবং এই চলমান সংকটের মধ্যে সাধারণের জন্য প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা যায় যত্ন সহকারে।

No comments

Powered by Blogger.