Header Ads

গুয়াহাটিতে একদিনে ৪ জনের শরীরে মহামারি কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পরল

নয়া ঠাহর ওয়েব ডেস্ক, ৮ মেঃ গুয়াহাটিতে একদিনে ৪ জনের শরীরে মহামারি কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়েছে। তাদের নাম ক্ৰমে জিএমসিএইচ এর ডাক্তার লিতিকেশ কুমার, চানমারির সাগরিকা দাস, চাংসারির দেবরাজ আচাৰ্য এবং ড° পংখী দত্ত। এদের তিন জনের মধ্যে কারও কোনও ট্ৰেভেল হিস্টোরি নেই। বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে চার জনের শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। এদিন সকালে ১৬ বছরের এক কিশোরীর মৃত্যু হয়। পরে তার শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে।

ছবি, সৌঃ ইন্টারনেট
আজ দুপুরে সাংবাদিকে সম্মলন করার কথা স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা। এতোদিন গুয়াহাটি গ্ৰীন জোনের মধ্যে ছিল। কিন্তু চার জনের শরীরে কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পরার পর এবার প্ৰশাসনের তরফ থেকে অরেঞ্জ জোন ঘোষণা করার সম্ভাবনা রয়েছে।  ইতিমধ্যেই মহানগরের চারটি জায়গাকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে প্ৰশাসনের তরফ থেকে। জিএমসিএস, জিএমসিএইচ-এর ১ এবং ৫ নং হোস্টেল , বি বরুয়া ক্যন্সার ইন্সটিটিউট এবং চানমারির ওমিও নগর এলাকা কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্ৰবার সকালের দিকে জিএমসিএইচ-এর চত্ত্বর খালি করে দেওয়া হয়েছে। অযথ ভিড় সেখানে করতে দেওয়া হচ্ছে না। ট্ৰাফিক কন্ট্ৰোলের তরফ থেকে পেট্ৰলিং করে সাধারণ মানুষকে এলাকা খালি করে দিতে বলা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, জিএমসিএইচ এর ডাক্তার লিতিকেশ কুমার করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। তিনি গুয়াহাটি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পিজি দ্বিতীয় বৰ্ষের ছাত্ৰ, স্ক্ৰীনিং-এর কাজে জড়িত ছিলেন। মহানগরের চানমারির অমিও নগরের এক মহিলা সাফাই কৰ্মা করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। তার নাম সাগরিকা দাস বলে জানা গেছে। চানমারির অমিও নগরকে কনটেন্টমেন্ট জোন বলে ঘোষণা করা হয়েছে। বি বরুয়া ক্যান্সার হাসপাতালকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়েছে। চাংসারি থেকে দেবরাজ আচাৰ্য গত ৬ মে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে গুয়াহাটিতে এসেছেন। তিনি করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছেন।  ড° পংখী দত্ত শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে।  এদিকে কাছাড় জেলায় ৪ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। চারজনই একই পরিবারের সদস্য। নাম ক্ৰমে  সাহাব উদ্দিন শদিয়াল(৫৩), রাজু উদ্দিন শদিয়াল(৩৬), বেবি বেগম শদিয়াল(৩৬) এবং সদিয়া বেগম(৯)। এই পরিস্থিতিতে জিএমসিএইচ এবং বি বরুয়া ক্যান্সার ইন্সটিটিউটে নতুন কোনও রোগী প্ৰবেশে নিষেধ করা হয়েছে। প্ৰবেশ দুয়ারে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। ১০ মে পৰ্যন্ত কোনও চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হবে না।

No comments

Powered by Blogger.