Header Ads

ভিন রাজ্যে আবদ্ধ প্রায় ৫ লক্ষ অসমিয়া মানুষকে নিরাপদে আনার জন্য সরকার ট্রেনের বদলে বিমান সেবা চাইছে, মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত



অমল গুপ্ত, গুয়াহাটি : আগামী ১৭ মে পর্যন্ত তৃতীয় পর্যায়ে লকডাউন বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল, অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা পরিবহনমন্ত্রী চন্দ্রমোহন পাটোয়ারী, ডিজিপি ভাস্করজ্যোতি মহন্ত মুখ্যসচিব কুমার সঞ্জয় কৃষ্ণ প্রমুখ উচ্চপর্যায়ের এক বৈঠকে বাইরের রাজ্যে আবদ্ধ প্রায় ৫ লক্ষ মানুষকে কিভাবে অসমে নিরাপদে আনা যায়, সে ব্যাপারে বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। অসমের ৩৩টি জেলাকে রেড জোনের বাইরে রাখা হয়েছে।  সন্ধ্যা ৭ টা থেকে সকাল ৭ টা পর্যন্ত সব কিছু বন্ধ থাকবে, কারফিউ সদৃশ পরিস্থিতি হবে, তখন ট্রেন, বাস চালানো যাবে না। রাজ্য সরকার সস্তায় চার্টার্ড বিমানের সাহায্য নিতে চাইছে। কেন্দ্র বিমান সেবা, রেল সেবা বন্ধ রাখবে, আর্ন্তরাজ্য বাস সেবা বন্ধ রাখবে। তবে অসম সরকার নিজের দায়িত্বে ট্রেন চালাতে চাইছে। তা না হলে বিমানের সাহায্য নিয়ে ভিন প্রদেশে আবদ্ধ অসমের মানুষকে আনতে চাইছে। এই কাজের জন্য সরকার এডিজিপি জি পি সিংকে নোডাল অফিসার হিসেবে নিযুক্তি  দিয়েছে। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের জনসংযোগ অফিসার নৃপেন ভট্টাচার্য জানান, ট্রেন চালাবার জন্য অসম সরকারের কাছ থেকে কোনো প্রস্তাব আসেনি। আজ প্রথম তেলেঙ্গানা থেকে হায়দরাবাদের মধ্যে যাত্রীবাহী ট্রেন চালানো হয়। আবদ্ধ যাত্রীদের জন্যই এই বিশেষ ট্রেন চালানো হয়। ভট্টাচার্য্য জানান, উত্তর পূর্বাঞ্চলে ৬০০টি মালবাহী ট্রেন ও ৮০টি পার্সেল ট্রেন চালানো হচ্ছে। সরকার বললে তারা যাত্রীবাহী ট্রেন চালাবে। তিনি জানান, লকডাউনের ফলে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকার সময় মুখ্য নিরাপত্তা অফিসার এম কে আগরওয়াল ও সহকারি নিরাপত্তা অফিসার প্রদীপ কুমার হীরা রেল লাইনের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখছেন।

No comments

Powered by Blogger.