Header Ads

রেল পরিষেবা বন্ধ হলেও, স্বাভাবিক রইল বিমান পরিষেবা



দেবযানী পাটিকর

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবেলায় রবিবার  ২২ মার্চ সকাল ৭ টা থেকে জনতা কার্ফু পাালনের জন্য দেশবাসীর কাছে আবেদন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী ।এ দিন স্বেচ্ছায় এই সময় ঘরের বাইরে বের  না হবার  জন্য প্রত্যেকের কাছে আবেদন করেছিলেন তিনি ।প্রধানমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া দিয়ে রবিবার দেশজুড়ে পালন করা হয় জনতা কার্ফু। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষিত জনতা কার্ফুর জন্য  ট্রেন পরিষেবা বাতিল করেছে ভারতীয় রেল। শনিবার মধ্যরাত থেকে রবিবার রাত দশটা পর্যন্ত কোনো দূরপাল্লার ট্রেন ,প্যাসেঞ্জার ট্রেন কোন স্টেশন থেকে যাত্রা করেনি ।ওদিকে ট্রেন বন্ধ হলেও বিমান চলাচল ছিল স্বাভাবিক ।উত্তর পূর্বাঞ্চলের বারোটি বিমানবন্দর ও একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নির্দিষ্ট সময়  সমস্ত বিমান চলাচল করেছে ।গুয়াহাটি সহিত উত্তর পূর্বাঞ্চলের সমস্ত বিমান বন্দর থেকে  আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা আগামী ২৯তারিখ পর্যন্ত বাতিলকরা হয়েছে।ঘরোয়া   কয়েকটি বিমান পরিষেবা বাতিল করা হয়েছে এর মধ্যে ড্রুক এয়ার এর ৩টি,গো এয়ারের ৫টি, স্পাইস জেটের ২টি,ইন্ডিগো ২টি বিমান বাতিল করা হয়েছে।




এ প্রসঙ্গে এয়ারপর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার উত্তর পূর্বাঞ্চলের রিজিওনাল এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর সঞ্জীব জিন্দাল  বলেন , যেহেতু বিমান পরিষেবা জরুরীকালীন পরিষেবা সেই জন্য উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ১২ টি বিমানবন্দর ও ১টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সমস্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে এবং সমস্ত বিমান বন্দরেই স্বাভাবিক ভাবেই  বিমান চলাচল করেছে। ডিব্রুগড়, শিলচর, গুয়াহাটি, শিলং ,জোরহাট ইম্ফল ,তেজপুর ,অরুণাচল এই  সমস্ত বিমান বন্দরে স্বাভাবিকভাবেই বিমান চলাচল করেছে। । শিলং এর সমস্ত ঘরোয়া বিমান স্বাভাবিকভাবেই  নির্দিষ্ট সময়ে চলাচল করেছে। ট্যাক্সি ও স্থানীয় যাতায়াত ব্যবস্থা স্বাভাবিক ভাবে এয়ারপোর্টে উপলব্ধ  ছিল।
প্রসঙ্গত সঞ্জীব জিন্দাল বলেন যে  নর্থ ইস্ট জোন সেফ জোন এখানে করোনাভাইরাসের কোনো পজিটিভ কেস আসেনি। গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও সমস্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থার সাথে  -সাথে  এখানে থার্মাল ইমাজিনারি ক্যামেরা দিয়ে স্ক্রীনিং চলছে  তিনি বলেন যে আগামী কালও স্বাভাবিক ভাবেই  বিমান উঠানামা করবে ও  ভবিষ্যতেও  স্বাভাবিকভাবেই বিমান চলাচল করবে ও আগামীকাল  দিল্লি এয়ারপোর্টএও স্বাভাবিকভাবেই বিমান উঠানামা করবে। বিমানবন্দরে যদিও লোকের সংখ্যা কম রয়েছে তথাপি ও রাজ্য সরকার এ বিষয়ে সহায়তা করছে।বিমানবন্দরে  বাইরে থেকে আসা যাত্রীর সংখ্যা বেশি ছিল। স্থানীয় যাত্রীর সংখ্যা অনেক কম ছিল।
ওদিকে গুয়াহাটি এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়া সমস্ত ডক্টরদের ,এয়ারপোর্ট স্টাফ, ট্যাক্সি পরিষেবা, রাজ্য পরিবহণ বিভাগ,গাড়ি চালকদের, দমকল কর্মী, পুলিশ ও মিডিয়াকর্মীদের তালি বাজিয়ে অভিবাদন জানায়।

No comments

Powered by Blogger.