Header Ads

গ্রাম কাগজ কলের কর্মচারিদের সুখ-দু:খের খুঁজে প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায়


নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, পাঁচগ্রাম : গতকাল বিকেলে আনুমানিক চারটায় কাগজকলের টাউনশিপস্থিত সিটিসি সেন্টারে উপস্থিত হয়ে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায় কাগজ কল কর্মচারীদের সুখ-দুঃখের খোঁজখবর নেন। এদিন কাগজ কল কর্মচারীদের প্রায় শতাধিক ছেলে -মেয়েরা ও সামিল ছিলেন। তাঁরা ও তুলে ধরেন তাদের পড়াশুনার অনেক ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়েছে কাগজ কলের এই দূরাবস্থায়। বকেয়া বেতন পরিশোধ না করায় অনেকেই অর্থের অভাবে বিনা চিকিৎসায় অর্ধাহারে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ার কথা ও তুলে ধরেন। পাশাপাশি অনেকেই আর্থিক দূরাবস্থার জন্য পড়াশুনা ও ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে বলে দাবি করেন। এদিন সব ধরনের অভাব অভিযোগ শুনে প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায় আবেগের সুরে বলেন আমি মন্ত্রী ও নয়, বিধায়ক ও নয়। আমি সাধারণ ব্যক্তি হিসেবে বা ভারতীয় জনতা পার্টির সদস্য হিসেবে সরকারের কাছে দাবি জানাব মিলের ঐ দূরাবস্থার ব্যাপারে ও আশাবাদী যে বর্তমান সরকার কাগজ কল নিয়ে কিছু একটা সুখবর দিতে পারেন অতিশীঘ্রই বলে এদেরকে আশ্বাস প্রদান করার পাশাপাশি প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায় কাগজ কল কর্মচারীদের ছেলে-মেয়েদের পড়াশুনা বাবদ নগদ একলক্ষ টাকার আর্থিক অনুদান তুলে দেন পড়ূয়াদের পক্ষে কলেজ ছাত্রী স্বর্ণশ্রী দাস,ও মৌসুমী দাসের হাতে। এবং পড়াশুনা বাবদ ব্যয় করে পড়াশুনায় মনোযোগ দেওয়ার জন্য পরামর্শ দেন। এদিন অন্যান্য দের মধ্যে ছিলেন পাঁচগ্রাম জিপির প্রাক্তন এপি সদস্য চিরঞ্জীব দাস ও বাসব চন্দ্র দেব। এছাড়া, এদিন পাঁচগ্রাম দাস কলোনির তাপসি চক্রবর্তী নামের এক মহিলাকে বেশ কিছু দিন আগে তাঁর বড়খলা স্থিত স্বামীর বাড়িতে অগ্নিদগ্ধ হয়ে পাঁচ গ্রাম বর্তমানে নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন মহিলাকে নগদ দশ হাজার(১০০০০/-) টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন প্রা: মন্ত্রী গৌতম রায়। এবং পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেন শীঘ্রই দোষী স্বামীকে গ্রেফতার করার জন্য। সবশেষে পাঁচগ্রাম সিদ্ধেশ্বর কপিলাশ্রমে সন্ধ্যা সাতটায় উপস্থিত হয়। ভক্তি প্রণাম শেষে খোঁজখবর নেন মন্দিরের উন্নয়ন মূলক কাজ-কর্ম নিয়ে, প্রায় আধঘণ্টা একান্ত আলাপচারিতায় মিলিত হয় মন্দির কমিটির সম্পাদক সূজন ভট্টাচার্য এর সাথে। মন্দির কমিটির কর্মকর্তাদের মধ্যে ছিলেন সঞ্জু দাস, কমলেন্দূ দাস (মুন্না) সহ অনেক। অসম দর্শনের প্রকল্পের আওতায় সিদ্ধেশ্বর কপিলাশ্রমের আরো ও উন্নয়ন হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন প্রাক্তন মন্ত্রী রায়। প্রয়োজনে সব ধরনের সহযোগিতার জন্য যোগাযোগ রাখতে চেষ্টা করবেন বলে জানান মন্দির কমিটির কর্মকর্তাদের।
ছবি-একান্ত আলাপচারিতায় সিদ্ধেশ্বর কপিলাশ্রমে প্রাক্তন মন্ত্রী রায়।

No comments

Powered by Blogger.